ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুরে একই পরিবারের ৬ সদস্যকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কোটচাঁদপুর উপজেলা বৃদ্ধ মা’সহ একই পরিবারের ৬ সদস্যকে পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিবেশ সন্ত্রাসী বিষারত গং। কোটচাঁদপুর উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত কিনু মন্ডলের আহত স্ত্রী রাবেয়া বেগম (৬৫) জানান, শনিবার বিকালে তার ছেলের স্ত্রী ও মেয়ের সাথে প্রতিবেশী বিষারত সরদারের স্ত্রীর তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার সূত্র ধরে ওই দিন রাত ৯টার দিকে হঠাৎ করে প্রতিবেশী মৃত দাউদ সরদারের ছেলে বিষারত তার ভাই শরিফ, বিল্লাল এবং শরিফে দুই ছেলে রাসেল ও তাসেল গাছি দা, ডাসা ও লোহার রডসহ ৭/৮ জন বৃদ্ধ রাবেয়া বেগমের বাড়িতে ঘুমন্ত মানুষের উপর হামলা চালায়। এতে রাবেয়া বেগম (৬৫), ছেলে ফারুক (৩০), রিপন (২৮), মেয়ে মর্জিনা (৪০) ছেলে বৌ আলিয়া (৪০) ও পারুল (২৫) আহত হয়। ঘটনার পর পরই মারাত্মক জখম বৃদ্ধ মা রাবেয়া বেগম তার ছেলে ফারুক কে স্বজনেরা একটি ইঞ্জিন চালিত ভ্যানে হাসপাতালে আনতে গেলে ওই সন্ত্রাসীরা পথের মধ্যে খালিশপুর হঠাৎ পাড়া’র নিকট গতিরোধ করে। এ সময় স্থানীয় মানুষের বাঁধার মূখে সন্ত্রাসীরা ঘটনা স্থল ত্যাগ করে। ওই রাতেই মা রাবেয়া বেগম ও ছেলে ফারুককে কোটচাঁদপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে রিপন বাদী হয়ে স্থানীয় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। বিষয়টি নিয়ে গোবিন্দপুরের ইউপি মেম্বার তাফসিরের নিকট জানতে চাইলে তিনি দৈনিক মাথাভাঙ্গা পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক জাহিদুর রহমান তারিককে বলেন, খুবই সামান্য বিষয় নিয়ে এ ধরণে গোলযোগ করা বিষারতদের ঠিক হয়নি। আমি উভয় পক্ষকে নিয়ে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করছি। এ ব্যাপারে থানা কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, অভিযোগ আমি পেয়েছি বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।