ঝিনাইদহে ১৩ বছরের শিশুকে ধর্ষণে শ্মশানের সেবায়েত সহযোগী গ্রেফতার

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহ শহরের মহিষাকুণ্ডু শ্মশানে ১৩ বছরের এক শিশুকে ধর্ষন চেষ্টার দায়ে গ্রেফতার হয়েছে শ্রী সাধন রায় (৬৫) নামে এক সেবায়েত সহযোগী। গনপিটুনির পর তাকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। শ্রী সাধন রায় ঝিনাইদহ শহরের ট বাজার পাড়ার বিস্টু পদ রায়ের ছেলে। এলাকাবাসী মহিষাকুণ্ডু গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক ও রহমত মাতুব্বর অভিযোগ করেন, বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সেবায়েত সহযোগী সাধন রায় বিস্কুট খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে অপর একটি হিন্দু পরিবারের ১৩ বছরের শিশুকে ধর্ষনের চেষ্টা করে। এ সময় গ্রামবাসী ধরে গনপিটুনি দিয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
শিশুটির মা রিনা সরকার জানান, তার মেয়েকে ধর্ষন চেষ্টা নয়, ধর্ষন করেছে। আমি এই ন্যক্কার জনক ঘটনার বিচার চাই। তিন আরো বলেন, এর আগেও ওই সেবায়েত সহযোগী আমার মেয়েকে ৭/৮ বার ধর্ষন করেছে। আজ সে কথা আমার মেয়ে আমাকে বলেছে। মহিষাকুণ্ডু শ্মশান কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিষু সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ ঘটনার পর আমাদের লজ্জায় মাথা হেট হয়ে গেছে। তিনি বলেন ৬৫ বছরের বৃদ্ধ যে এমন কাজ করতে পারে প্রথমে তা আমার বিশ্বাস হচ্ছিল না। বিভিন্ন লোকের মোবাইল রিসিভ করতে করতে আর জবাব দিতে দিতে হাফিয়ে উঠেছি। তিনি সেবায়েত সহযোগী সাধন রায়ের শাস্তির দাবী জানান। ঝিনাইদহ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার কর্মী বাবলু কুন্ডু জানান, মেয়েটিকে আইনী সহায়তা দিতে আমরা কাজ শুরু করেছি। প্রথমে মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ বৃহস্পতিবার দুপুরে জানান, ধর্ষন চেষ্টার দায়ে সাধন রায় গ্রেফতার হয়েছে। তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা আরো তদন্ত করে দেখছি। ঘটনাস্থলে একজন এসআইকে পাঠানো হয়েছে। এদিকে একটি মহল এই ধর্ষন ঘটনা চাপা দিতে গভীর রাত পর্যন্ত দেন দরবার চালিয়েছে। এরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্ষনের এই ঘটনাটি প্রচার হয়ে তাদের মিশন ব্যার্থ হয়ে যায়।

Inline
Inline