ঝিনাইদহে টি আই কৃষ্ণপদ সরকারের সাথে রাস্তায় শিক্ষার্থীরা!

ঝিনাইদহ সংবাদদাতা  : ঝিনাইদহের বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি কাজ করছে শিক্ষার্থীরা। যানজট নিরসনসহ যানবাহনের কাগজ ও ড্রাইভিং লাইসেন্স পরিক্ষায় তারা ট্রাফিক পুলিশের সাথে কাজ করছেন। এতে করে মোটরযান আইনে মামলার পরিমান বেড়েছে বিস্তর, গ্রেফতার হয়েছে বহুসংখ্যক গাড়ি। আসছেনা কোন গাড়ি ছাড়ানোর জন্য তদ্বির।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, ঝিনাইদহের মুজিব চত্তরসহ শহরের বেশ কয়েকটি এলাকার মোড়ে মোড়ে (৬ আগস্ট) সোমবার সকাল থেকে দেখা যাচ্ছে এ চিত্র। সাধারণ পথচারীসহ গাড়ির চালকরাও সাধারণ নাগরিক এ বিষয়টিকে বিস্তর সাধুবাদ জানিয়েছেন। সকাল থেকে ৩/৪ ঘন্টার ব্যবধানে ১০০টির মতো মামলা হয়েছে। রেজিস্ট্রেশন না থাকায় ও অন্যান্য মামলায় ২৫টি গাড়ি জব্দ করা হয়েছে। ট্রাফিকদের সাথে রাস্তায় কর্মরত ছিলেন ঝিনাইদহ জেলা স্কাউট’র ইন্টার দ্বিতীয় বর্ষের তিনজন শিক্ষার্থী। এরা হলেন, ক্যাডেট এস এম আবির, রুপা, সোনিয়া, শাহেদ। কেসি কলেজের সোহাগ হোসেন ও মেহরাব বাপ্পি। ঝিনাইদহের সার্জেন্ট ইনেসপেক্টর কৃষ্ণপদ সরকার তাঁর রেকর্ড বক্তব্যে জানান, আজ ১০০টির মতো মামলা করা হয়েছে, রেজিস্ট্রেশন না থাকায় ও অন্যান্য মামলায় ২৫টির মতো গাড়ি আটক করা হয়েছে। তাছাড়া শিক্ষার্থীরা আমাদের কাজে সহযোগিতা করছে এটা খুবই আনন্দ লাগছে। তাছাড়া বিভিন্ন যানবাহন সিগন্যাল দিলে নানা পরিচয়ে তদ্ববির আসে। কিন্তু শিক্ষার্থীরা সাথে থাকায় তা করতে পারছেনা। এটা আমাদের কাজের জন্য অনেক ভালো হয়েছে। ট্রাফিক সপ্তাহ ২০১৮ এর অংশ হিসেবে সোমবার (৬ আগস্ট) সকাল ৮টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ ঝিনাইদহের মুজিব চত্তর মোড়ে ট্রাফিক পুলিশের এ অভিযানে ২৫টির মতো মামলা হয়েছে। মোটরযান আইন লঙ্ঘনের কারনে এ মামলা গুলো হয়েছে বলেও জানান তিনি।
রাস্তায় যানজট নিরসনে কর্মরত শিক্ষার্থীরা বলেন, প্রচন্ড রোদে আমাদের একটু কষ্ট হচ্ছে। তাতেও দেশের জন্য কাজ করছি কষ্ট কম অনুভব হচ্ছে। আমরা দেশের কাজে আসতে পেরে খুশি ও আনন্দিত। ট্রাফিক সপ্তাহ ২০১৮ এর অংশ হিসেবে সোমবার ঝিনাইদহের মুজিব চত্তর এলাকায় এই সফল অভিযানে ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্বে ছিলেন, সার্জেন্ট ইনেসপেক্টর (টি,আই) কৃষ্ণপদ সরকার স্বয়ং নিজে, টিএস আই আমির হোসেন, এ টিএসআই আলমগীর প্রমুখ। এদিকে গতকাল জেলা পুলিশের আয়োজনে এ উপলক্ষে রোববার সকালে শহরের মুজিব চত্বর থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। এতে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে পুলিশ, রাজনীতিবিদ, শ্রমিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে পোষ্ট অফিস মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব সাইদুল করিম মিন্টু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মকবুল হোসেন, ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সভাপতি এম রায়হান, জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি রোকনুজ্জামান রানু, ঝিনাইদহ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জীবন কুমার বিশ্বাস, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রানা হামিদসহ অন্যান্যরা বক্তব্য রাখেন।
বক্তারা, সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে ট্রাফিক আইনের কঠোর প্রয়োগের পাশাপাশি সচেতনতা বাড়ানোর প্রতি আহ্বান জানান। আজ থেকে শুরু হওয়া এ সপ্তাহ চলবে আগামী ১১ আগষ্ট পর্যন্ত।

Inline
Inline