জিয়াউর রহমানের ৮২ তম জন্মবার্ষিকী আজ

আজ বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮২ তম জন্মবার্ষিকী। ১৯৩৬ সালে বগুড়ার গাবতলীর নিভৃত জনপদ বাগবাড়ীর এক বনেদি মুসলিম পরিবারে জন্ম নেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সেক্টর কমান্ডার হিসেবে বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি। দায়িত্ব পালন করেন মুক্তিযুদ্ধের একটি স্বতন্ত্র সেক্টরের। তার নামে গড়ে ওঠা জেড ফোর্স রণাঙ্গনে যুদ্ধ করে দুঃসাহসিকতায়।

১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর ‘সিপাহী জনতার বিপ্লবের’ মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে অধিষ্ঠিত হন জিয়াউর রহমান। তিনি ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৮১ সালের ৩০ মে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে সেনাবাহিনীর একটি অংশের অভ্যুত্থানে নিহত হন তিনি।

জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ৭ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। গতকাল বিএনপির উদ্যোগে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে আলোচনা সভার মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। এছাড়া কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, আজ সকালে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দলের অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীরা শহীদ জিয়ার মাজারে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও ফাতেহা পাঠ করবেন। কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারা দেশে কার্যালয়গুলোতে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো নিজ নিজ উদ্যোগে আলোচনা সভার আয়োজন করবে। ছাত্রদল জিয়াউর রহমানের ওপর আলোকচিত্র প্রর্দশন এবং জিয়াউর রহমানের আমলে তার উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের ওপর বিএনপি একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করবে। শ্রমিক দল র্যালির আয়োজন করবে, মুক্তিযোদ্ধা দল আলোচনা সভা ও বুকলেট প্রকাশ করবে।

ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ আজ সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প ও বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ করবে। নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকরা চিকিত্সা সেবা দেবেন। দলের প্রতিষ্ঠাতার জন্মদিন উপলক্ষে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বাণীতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, শহীদ জিয়ার জন্মদিনে তার প্রদর্শিত পথেই আধিপত্যবাদের ষড়যন্ত্রকে মোকাবিলা করে জনগণের ঘাড়ে চেপে বসা বর্তমান ফ্যাসিবাদী শক্তিকে পরাভূত করতে হবে।

Inline
Inline