জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে টিকে থাকলো শ্রীলঙ্কা

টানা দুই ম্যাচে হারের পর স্বস্তির জয় পেলে শ্রীলঙ্কা।রবিবার ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে জিম্বাবুয়েক ৫ উইকেটে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। এ জয়ে ফাইনালে আশা বাঁচিয়ে রাখলো তারা।

প্রথমে ব্যাট করে মাত্র ১৯৮ রানে অলআউট হয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। জবাবে ৪৪.২ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয়ে পৌঁছে যায় শ্রীলঙ্কা।

২ জয় ও বোনাস পেয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে বাংলাদেশ। পয়েন্ট ১০। অন্যদিকে ৪ পয়েন্ট করে জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কার। তবে রান রেটে কিছুটা এগিয়ে থাকায় দুই নম্বরে রয়েছে জিম্বাবুয়ে।

১৯৯ রানের ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২ উইকেট হারিয়ে ২২তম ওভারে ১০০ রান পেরিয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। কিন্তু এরপর দ্রুত দুই উইকেট পড়ে গেলে চাপে পড়ে তারা। তবে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক দীনেশ চান্ডিমাল শক্ত হাতে হাল ধরে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন। সঙ্গে পান থিসারা পেরেরাকে। দুজনই অবিচ্ছিন্ন থেকে দলকে জয়ে পৌঁছে দেন। ৪৪.৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় পায় শ্রীলঙ্কা।

৭১ বলে ৩৮ রানে, ২৬ বলে ৩৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন থিসারা পেরেরা। জিম্বাবুয়ের পক্ষে মুজারাবানি ৫২ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন।

এরআগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৪৪ ওভারে ১৯৮ রানে অলআউট হয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৮ রান করেছেন ব্রেন্ডন টেইলর। আর শ্রীলঙ্কার পক্ষে ৮ ওভার বল করে ৩৩ রান দিয়ে ৪টি উইকেট নিয়েছেন থিসারা পেরেরা। আট ওভার বল করে ২৮ রান দিয়ে তিনটি উইকেট নেন নুয়ান প্রদীপ।

শ্রীলঙ্কা যদি আজ জিততে পারে তাহলে তাদের ফাইনালে খেলার আশা টিকে থাকবে। আর হারলেই ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ হবে জিম্বাবুয়ে। তাই ফাইনালে খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখতে হলে শ্রীলঙ্কার আজ জয়ের কোনও বিকল্প নেই। এর আগে শ্রীলঙ্কা দুইটি ম্যাচ খেলে দুইটিতেই হেরেছে। আর জিম্বাবুয়ে দুইটি ম্যাচ খেলে একটিতে হেরেছে ও একটিতে জিতেছে।

আজ ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ৪৪ রানে প্রথম উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। থিসারা পেরেরার বলে উপুল থারাঙ্গার হাতে ধরা পড়েন হ্যামিলটন মাসাকাদজা। তিনি করেন ২০ রান। দলীয় ৪৯ রানে পেরেরার বলে উপুল থারাঙ্গার হাতে ক্যাচ হন সলোমন মিরে।

দলের রান যখন ৫৬ তখন থিসারা পেরেরার বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন সলোমন মিরে। ১৭তম ওভারে লক্ষণ সান্দাকানের বলে কুসল মেন্ডিসের হাতে ধরা পড়েন সিকান্দার রাজা। দলীয় ১৩৯ রানে লক্ষণ সান্দাকানের বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন ম্যালকম ওয়ালার। দলীয় ১৪০ রানে রান আউট হন পিটার মুর।

ইনিংসের ৩৮তম ওভারে থিসারা পেরেরার বলে উপুল থারাঙ্গার হাতে ধরা পড়েন ব্রেন্ডন টেইলর। তিনি ব্যক্তিগত অর্ধশত করেন। ৫৮ রান করে আউট হন তিনি। ওয়ানডে ক্রিকেটে এটি তার ৩৩তম অর্ধশত। ৪২তম ওভারে কাইল জারভিসকে বোল্ড করেন নুয়ান প্রদীপ। ৪৪তম ওভারে গ্রায়েম ক্রেমার ও ব্লিজিং মুজারাবানিকে বোল্ড করেন নুয়ান প্রদীপ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

জিম্বাবুয়ে ইনিংস: ১৯৮/১০ (৫০ ওভার)

(হ্যামিলটন ২০, সলোমন মায়ার ২১, ক্রেইগ আরভিন ২, ব্রেন্ডন টেইলর, সিকান্দার রাজা ৯, ম্যালকম ওয়ালার ২৪, পিটার মুর ০, গ্রায়েম ক্রেমার ৩৪, কাইল জারভিস ৫, টেন্ডাই সাতারা ২*, ব্লিজিং মুজারাবানি ০; সুরঙ্গা লাকমল ০/২৩, নুয়ান প্রদীপ ৩/২৮, থিসারা পেরেরা ৪/৩৩, আকিলা ধনঞ্জয়া ০/৪৫, লক্ষণ সান্দাকান ২/৫৭, আসেলা গুনারত্নে ০/৪)।

শ্রীলঙ্কা ইনিংস : ২০২/৫ (৪৪.২ ওভার)

(পেরেরা ৪৯, থারাঙ্গা ১৭, মেন্ডিস ৩৬, ডিকওয়েলা ৭, চান্ডিমাল ৩৮*, গুণারত্নে ৯, পেরেরা ৩৯* ; মুজারাবানি ৩/৫২ , জারভিস ১/৩৪ , চাতারা ১/৪০)

ফল : শ্রীলঙ্কা ৫ উইকেটে জয়ী