জামালগঞ্জে রেজাউল করিম শামীমের মতবিনিময় সভা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : দেশরত্ন শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শিক চেতনায় উজ্জীবিত তৃণমূলের একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে র্দীঘ দিন যাবৎ কাজ করে যাচ্ছেন । বঙ্গবন্ধুর তনয়া ও আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার সঞ্চালনায় জাতির জনকের জন্মশত বার্ষিকী ও নিরংকুশ বিজয় সুনিশ্চিত পল্লী পর্যায়ের সংগঠনকে আরো শক্তিশালি বেগবান করার প্রত্যয়ে ৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ১টায় সাচনা বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে এক বিশাল মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। শুরুতেই বিশ্ব শান্তি কামনায় কোর আন থেকে তেলোয়াত করেন আব্দুল আওয়াল ও পবিত্র গীতা পাঠ করেন,সত্যেন্দ্র কুমার রায়,জামালগঞ্জ উপজেলার আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক এম নবী হোসেন, শম্ভু আর্চায্যের সঞ্চালনায় উপজেলার আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সাবেক সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাচনা বাজার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শামীম, তিনি বক্তব্যের শুরুতেই উপস্থিত উপজেলা আওয়ামীলীগের ,ইউনিয়ন,ওয়ার্ড তৃন্যমূল পর্যায় ও অঙ্গসংগঠনের সর্বস্থরের নেতৃবৃন্দ প্রতিকুল আবহাওয়া উপেক্ষা করে মুশলধারে বৃষ্টির মধ্যে কষ্ট স্বীকার করে আজকে আমার মত বিনিময় সভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ও ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন,জামালগঞ্জ তথা আমাদের জাতীয় নির্বাচনী এলাকার তৃর্নমূল দলের সাংগঠনিক কাঠামো দৃঢ় ও উন্নয়নের স্বার্থে আওয়ামীলীগের নিবেদিত, ত্যাগী,নি:স্বার্থ সমাজকর্মী জাতীয় সংসদে যাওয়ার প্রয়োজন বোধ মনে করছি কারণ বর্তমান এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়জ্জেম হোসেন রতন আমার জানা মতে দলের কেউ নয়। তিনি ছাত্রলীগ,যুবলীগ আওয়ামীলীগের সম্পর্ক ছিল বলে আমার জানা নাই। এম পি হওয়ার পর থেকে দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে তিনি কাজ করতে ইচ্ছুক নয় বা করেন না। আজ পর্যন্ত বিএনপি জামাতের লোক নিয়ে কাজ করছেন । দলের ত্যাগী নেতা কর্মীদের ধার ধারেন না। তিনি দলের উন্নয়নে বিশ্বাসী না। আমি ছাত্র লীগ, যুবলীগ আওয়ামীলীগে গুরুত্বপূর্ণ পদে নের্তৃত্ব দিয়ে আসছি সর্ব শেষ জেলা সাংগঠনিক পদে প্রায় ১৭/১৮ বছর দায়িত্ব পালন করে করেছি। আগামী সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগে দলীয় নেত্রী আমাকে মনোনিত করলে জাতীয় নির্বাচন করার জন্য আমি আপনাদের মতামত নিয়ে প্রার্থীতা ঘোষনা করার জন্য আপনাদের ডেকেছি। উপস্থিত দলীয় উপজেলা কমিটি থেকে নিয়ে ওয়ার্ড পর্যায়ে নেতৃবৃন্ধ বক্তব্যে মতামত দেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজা আক্তার দিপু,পংকজ পাল চৌ:,সুবোধ দাস,চিত্ত রঞ্জন পাল,আব্দুল মালেক,আবুর কালাম , জয়নাল আবেদীন,নুরুল হুদা চৌধুরী,খোকন চৌধুরী,অজিত সরকার,শাহ আক্তারুজ্জামান,আব্দুল কাদির,নির্মাল্য কান্তি রায় সসীম,সরাফত আলী,আবু হানিফা,নুর মিয়া,শাহীন আলম,আব্দুল খালেক,মোবারক আলী তালুকদার, জামিল আহমেদ জুয়েল,ফারুক আহমেদ প্রমুখ।