জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের বিভিন্ন কর্মসূচি পালন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে দিনব্যাপি বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে।
বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল এর নেতৃত্বে ১৫ আগস্ট সকাল ৯ টায় ৩২ ধানমন্ডিস্থ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ, শ্রদ্ধা নিবেদন ও বিশেষ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সংগঠনের নেতাকর্মী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ডের সদ্য সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত কাদির গামা।
সকাল ১১টায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ৫১, ৫১/এ, পুরানা পল্টন ঢাকায় ‘বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)’র সাবেক কোষাধ্যক্ষ মোঃ আতাউর রহমান, রুর‌্যাল জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশন (আরজেএফ)’র চেয়ারম্যান এস এম জহিরুল ইসলাম, সংগঠনের প্রচার সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান চমন-ই-এলাহী, পাঠাগার সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেন খান, নির্বাহী সদস্য মোঃ মাসুদ আলম, সদস্য আব্দুল মান্নান ইমরান, মোঃ আব্দুল হালিম মাস্টার, মোঃ শাহিন শুভ, মোঃ রাজিবুল ইসলাম রাজিব, মোঃ আনোয়ার হোসেন আনু প্রমুখ। সভাপতির বক্তব্যে লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল বলেন, বঙ্গবন্ধু-মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ অভিন্ন ও অবিচ্ছিদ্য। বঙ্গবন্ধু একটি মানচিত্রের নাম, একটি জাতির নাম, তিনি মৃত্যুঞ্জয়ী। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাঙালি জাতির সবচেয়ে বড় সম্পদ। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও তার চেতনা দেশের সর্বস্তরে বাস্তবায়ন করতে বঙ্গবন্ধুর চর্চা বাড়াতে হবে। সরকারিভাবে বঙ্গবন্ধুর নামে গবেষণা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা প্রয়োজন। মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন বাংলাদেশ গড়তে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সর্বস্তরে বাস্তবায়ন করতে হবে। আলোচনা শেষে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শহীদদের মাগফেরাত এবং দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন, মাওলানা শামসুল হক হাবিবী।
বিকাল ২টায় বায়তুল মোকাররম মসজিদ এর উত্তর গেটে দুঃস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।(খবর বিজ্ঞপ্তি)