জলের জীবনে ভাগ্য বদল হয়না তাদের!

এম শাহরিয়ার জিলন, ভোলা সংবাদদাতা : ‘ছবি তুলে কি হবে, আমাদের খবর কেউ নেয় না’। আমারা কোন সাহায্য পাইনা, আমাগো নৌকা বদল হয় কিন্তু ভাগ্য বদল হয়না, ছবি তুলে কি করবেন? নৌকা ভাসি মানতা নারী পারুল বেগম ও তার সন্তানদের ছবি তুলতে গেলে এমন কথাই বলেন পারুল। ঘাটে নোঙ্গর দেয়া একটি নৌকায় ছেলে-মেয়েদের নিয়ে বসেছিলেন তিনি। চোখেমুখে তার দুশ্চিন্তার ছাপ’। নদীতে মাছ শিকার শেষ করে ঘাটে এসেছে পারুলদের নৌকা। তার স্বামী আলমগীর সর্দার ৪/৫টি মাছ নিয়ে আড়তে বিক্রির জন্য গিয়েছেন। তার অপেক্ষা মাছ বিক্রির টাকা হাতে পেলে দু’বেলা দু’মুঠো খাবার ব্যবস্থা হবে।
ভোলা সদরের ইলিশা ফেরীঘাট এলাকার মাছ ঘাটে এমন চিত্র দেখা গেছে। সেখানে মানতা গৃহবধু পারুল বেগমসহ অন্যদের অবস্থা যেন একই।
শুধু পারুল নয়, তাদের মত অর্ধশতাধিক মানতা নারী-পুরুষের নৌকা বহর ইলিশা ও জোরখাল ঘাটে ভিড়ানো। সারাদিন জাল বেয়ে নদীতে যেটুকু মাছ পাবেন তা বিক্রি করেই সংসার চালাবেন তারা। কিন্তু ইলিশ সংকটে তাদের জীবনে নেমে এসেছে দুর্দিন। পারুলদের মতো অনেকের অবস্থা একই, জলে জড়ানো জীবনে ভাগ্য বদল হয়না তাদের।
পারুন বেগম জানায়, স্বামী, এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে নৌকায় ভাসমান সংসার তার, আগে বাবার নৌকায় ছিলেন, এখন স্বামীর নৌকাতে। নৌকা বদল হলেও জীবন বদলায়নি তার। গত এক সপ্তাহে মাত্র দুই হাজার টাকার মাছ বিক্রি করেছেন, যা ডাল-ভাতের ব্যবস্থা করতে গিয়েই শেষ হয়ে গেছে।
পারুল জানায়, আমাদের আবার আনন্দ-উৎসব? ভাতের টাকার যোগাড় করতেই কেটে যায়। কিভাবে খাবার জোগাড় করবো সে চিন্তায় দিন কেটে যায়, সেখানে আবার আনন্দ, নদীর উত্তাল ঢেউয়ে চাপা পড়ে যায় আমাদের আনন্দ। নদীই জীবন নদীই মরন। ঘাটে নোঙ্গর দেয়া নৌকায় ৩ মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে মন খারাপ করে বসে আছেন মানতা সম্প্রদায়ের ফরিদ মিয়া। নদীতে ইলিশ সংকটে যেন সংকটময় হয়ে পড়েছেন তার জীবন।
ফরিদ জানায়, নদীতে মাছ কম, তাই আয়-ইনকাম নেই। দুইদিন মাছ বিক্রি করে পেয়েছি মাত্র ৭’শ টাকা। তা দিয়ে কি পেটের ব্যবস্থা করবো নাকি নৌকার জন্য তেল কিনবো। তিনি বলেন, সদরের রাজাপুর ইউনিয়নের জোরখাল এলাকায় তাদের নৌকার শতাধিক বহর, যারা নৌকায় বসবাস করেন। তাদেরও একই অবস্থা, নদীতে মাছ নেই, তাই মানতা পল্লীতে হাসি নেই। সবার যেন মলিন মুখ।
উপকূলের বিভিন্ন মৎস্য ঘাটে আলমগীর ও পারুল বেগমদের মত নৌকা ভাসি মানতাদের জীবন জীবিকা নৌকাতেই। একটু মাছ পেলে মুখে হাসি ফুটে নয়ত মলিন মুখ। জলের সাথে যুদ্ধ করতে গিয়ে কখনো কখনো আশা-স্বপ্ন চুরমার হয়ে যায় তাদের।

Inline
Inline