জবিতে ইসলামি মূল্যবোধ সংরক্ষণে সরকারের ভূমিকা নিয়ে শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে ‘ইসলামি মূল্যবোধ সংরক্ষণে শেখ হাসিনা সরকারের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘মানবিকতা ও ধর্মভীরুতা কথা বলে অনেকে ইসলামের অপব্যাখ্যা করেন। নতুন প্রজন্মদের মাঝে ইসলামের সঠিক আদর্শ ও মানবিকতার শিক্ষা প্রদান করতে হবে। বর্তমান সরকার ইসলামি শিক্ষার মান উন্নত করার লক্ষ্যে কওমি মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের সনদকে সরকারি স্বীকৃতি প্রদান করেছেন।’

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল বলেন, ‘মানুষের মানুষত্বের শিক্ষা শিশুকাল থেকেই শুরু হয়। এইজন্য মানুষের মনুষত্বকে জাগ্রত করার জন্য জ্ঞান ও বিবেক দিয়ে কাজ করতে হবে। সঠিক দ্বীন শিক্ষাই ইসলামের অন্যতম শিক্ষা। আমরা আজ খাদ্য উৎপাদনের স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি, কিন্তু মানবিক মূল্যবোধে পিছিয়ে পড়ছি। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে এবং বিশ্ব দরবারে আমাদের মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে হলে সঠিকভাবে কুরআন ও সুন্নাহর আদর্শকে ধারণ করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে বর্তমান সরকার এক হাজার দশটি মাদ্রাসা নির্মাণ করতে যাচ্ছে। ইতোমেধ্যে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ৫৬০টি মডেল মসজিদ তৈরি করা হয়েছে। প্রায় ষোল হাজার মহিলা কর্মীদের সারা বাংলাদেশের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের চাকুরি প্রদান করা হয়েছে। মসজিদ ও মাদ্রাসার উন্নয়ন ও নির্মাণে বর্তমান সরকার প্রায় নয় হাজার কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ করেছেন। এ সকল কার্যকলাপ থেকেই প্রতিয়মান হয় যে বর্তমান সরকার ইসলামের মূল্যবোধ সংরক্ষণে কতটা দায়িত্বশীল।’

ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে আলোচক হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. আতিয়ার রহমান ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল অদুদ। সেমিনার বিষয়ক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোস্তফা কামাল এবং স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন সহকারী অধ্যাপক ড. মো. ইব্রাহীম খলিল।

এছাড়া জবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. তরিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিন রাসেল বক্তব্য প্রদান করেন। ভাষা আন্দোলন এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে বীর শহীদের আত্মার মাগফেরাত এবং দেশ ও জাতির কল্যাণার্থে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

এসময় বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, ছাত্রলীগ নেতাকর্মী, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Inline
Inline