জঙ্গিবাদ একক কোনো দেশ বা ধর্মের সমস্যা নয়: মনিরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক : ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি) প্রধান মো. মনিরুল ইসলাম বলেছেন, জঙ্গিবাদ একক কোনো ধর্ম বা একক কোনো দেশের সমস্যা নয়। যেকোনো ধর্মের মানুষ এর সাথে জড়িত হতে পারে।

সহিংস উগ্রবাদ প্রতিরোধে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভূমিকা, উগ্রবাদের এ সমস্যা সমাধানে ছাত্রছাত্রীরা কী ভাবছে তা জানতে বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) রাজধানীর বনানীস্থ নর্দান ইউনিভার্সিটিতে আয়োজিত ‘উগ্রবাদ বিরোধী ছাত্র সংলাপে’ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ইউএনডিপি বাংলাদেশের সহযোগিতায় ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট এ সংলাপের আয়োজন করে। সংলাপে নর্দান ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও সাংবাদিকরা অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, জঙ্গিবাদ একক কোনো ধর্ম এবং একক কোনো দেশের সমস্যা নয়। যেকোনো ধর্মের মানুষ এর সাথে জড়িত হতে পারে। জঙ্গিবাদ দমনে এ দেশের মিডিয়া, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্রছাত্রী, পেশাজীবী ও তরুণ সমাজের ভূমিকা রয়েছে। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সবাই রুখে দাঁড়ালে জঙ্গিবাদ দমন করা সম্ভব।

উগ্রবাদ প্রসঙ্গে ইউএনডিপির প্রতিনিধি ফয়সাল বিন মজিদ বলেন, জাতিসংঘ মনে করে উগ্রবাদ যেকোনো দেশের শান্তি এবং উন্নয়নে বাধা দেয়। তাই জঙ্গিবাদ দমনে জাতিসংঘ সারাবিশ্বে কাজ করছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নর্দান ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, প্রিভেনশন ইজ বেটার দ্যান কিউর। তাই জঙ্গিবাদকে প্রতিরোধ করতে হবে। এই ধরনের সংলাপ শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে দেশের সকল তরুণদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। তাহলে সবাই জঙ্গিবাদ সর্ম্পকে সতর্ক হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবু ইউসুফ মো. আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে সংলাপে নর্দান ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. ইঞ্জিনিয়ার হুমায়ুন কবীর, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোশাররফ এম. হোসেন, সিটিটিসির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার আব্দুল মান্নান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।