চুয়াডাঙ্গায় ৫০ বিঘা জমির পাটক্ষেত বিনষ্ট : ডিলারের জরিমানা

হাবিবুর রহমান, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার মদনা সাড়াবাড়ীয়া গ্রামের মাঠে পাট ক্ষেতে ঘাস মারা ঔষধ প্রয়োগ করায় ২২ জন কৃষকের প্রায় ৫০ বিঘা জমির পাট বিনষ্ট হয়েছে। কীটনাশক ডিলারের পরামর্শে ঔষধ প্রয়োগ করে চাষিরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে অভিযোগ কৃষকদের।

দামুড়হুদা উপজেলা কৃষি বিভাগ ডিলারের প্রতিষ্ঠান থেকে মেয়াদ উর্ত্তীণ বীজ ও কীটনাশক জব্দ করে প্রতিষ্ঠানটি শীলগালা করে দিয়েছে। আজ (সোমবার) মেয়াদ উর্ত্তীণ বীজ ও কীটনাশক রাখার অপরাধে ভ্রাম্যমান আদালত ডিলার সাইদুর রহমানকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন।

এছাড়াও কীটনাশক কোম্পানী সেমকো ক্ষতিগ্রস্থ চাষিদেরকে বিঘা প্রতি ১১শ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। জব্দকৃত মেয়াদ উর্ত্তীণ বীজ ও কীটনাশক পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমান আদালত ও কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, গত কয়েক দিন আগে দামুড়হুদা উপজেলার মদনা-পারকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের সাড়াবাড়ীয়া গ্রামের ২২জন চাষী গ্রামের সাইদুর মেশিনারিজ থেকে পাট ক্ষেতে ঘাস মারা ঔষধ কিনতে যায়। ঔষধ বিক্রেতা সাইদুর রহমান চাষিদের ভুল বুঝিয়ে গমক্ষেতের ঘাস মারার ঔষধ পাট ক্ষেতে দেওয়ার পরামর্শ দেন। তার দেওয়া পরামর্শ মোতাবেক তার নিকট ধেকে ২২ জন কৃষক তাদের প্রায় ৫০ বিঘা পাট ক্ষেতে ঘাস মারা ওই কোম্পানীর ঔষধ প্রয়োগ করে। ক্ষেতে ঔষধ প্রয়োগ করার পর থেকে চারা পাট মরা শুরু হয়।

এসময় ভুক্তভূগি কৃষকগণ উপজেলা কৃষি অফিসে অভিযোগ করেন। চাষিদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সোমবার কৃষি অফিসার সামিউর রহমান দ্রুত ডিলার সাইদুর মেশিনারিজে অভিযান চালিয়ে মর্ডান সিডের ১১ প্যাকেট ঢেড়স, লালশাক, বরবটি, ইয়োন সিডের চার প্যাকেট শশার বীজ, লাল তিরের সিডের ঝিঙ্গার বীজ, চান্দিপুর সিডের ৫ প্যাকেট টমেটোর বীজ, জাকির বীজ ভান্ডারের ৬ প্যাকেট পেঁপেঁর বীজ, ইস্পাহানী কোম্পানির করলার বীজ ও এক প্যাকেট মেয়াদ উর্ত্তীণ সেভিন পাউডার জব্দ করে।

পরে দামুড়হদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যজিট্রেট মো: রফিকুল হাসানকে সংবাদ দিলে তিনি দুপুরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ডিলার সাইদুর রহমানকে কীটনাশক অধ্যাদেশ আইনের ১৯৭১ এর ২১ ও ২২ ধারায় দোষী সাবস্থ্য করে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন। ডিলার সাইদুর রহমান নগদ ১০ হাজার টাকা পরিশোধ করে মুক্তি পায়।

একই সময় আদালতে ঘাস মারা বিষ প্রয়োগে ক্ষতিগ্রস্থ চাষিদেরকে সেমকো কোম্পানি ও ডিলার সাইদুর রহমান বিঘা প্রতি ক্ষতিগ্রস্থ চাষিদেরকে ১১শ টাকা করে ক্ষতিপূরন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনায় সহযোগিতায় ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসের সাটিফিকেট সহকারি জিহন আলী।