‘চিকিৎসকের অবহেলায়’ নার্সের মৃত্যু

যশোর প্রতিনিধি : যশোর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে দায়িত্ব পালনকালে অসুস্থ হয়ে বিনা চিকিৎসায় সিনিয়র স্টাফ নার্স ফাইমা খাতুন মারা গেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। শনিবার বিকালে এ ঘটে৷

নিহত ফাইমা খাতুন শহরের ঘোপ জেল রোড বেলতলা এলাকার শাহ আলমের স্ত্রী।

হাসপাতালের একাধিক সিনিয়র স্টাফ নার্স অভিযোগ করেন, বিকালে নিহত ফাইমা খাতুন হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে পালন করছিলেন। এসময় নামাজের জন্য ওজু করে নামাজ পড়তে যান। তারপর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে একই ওয়ার্ডের সিনিয়র স্টাফ নার্স আসমা ও এক ছাত্রী সুমনা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক হাবিবুর রহমান ভূইয়াকে ডাকতে আসেন। কিন্তু তিনি অপরাগতা প্রকাশ করেন। পরে একই ওয়ার্ডের আয়া আমেনা আবারো ডাকতে গেলে তিনি ও জরুরি বিভাগের ব্রাদার তারক নাথ ও জাহাঙ্গীর হোসেন জানা- স্যার যেতে পারবেন না। বলেন, রোগী নিচে নামিয়ে আনেন।

এরপর ফাইমা খাতুনকে অন্য নার্স ও আয়ারা জরুরি বিভাগে আনেন। এরপর মৃত অবস্থায় ভর্তি করে করোনারি বিভাগে পাঠিয়ে দেন চিকিৎসক হাবিবুর রহমান ভূইয়া।

পরে করোনানি কেয়ার ইউনিটের চিকিৎসক ফজলুল হক খালিদ বিকাল ৫টা ৪০মিনিটে তাকে ঘোষণা করেন ।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক হাবিবুর রহমান ভূইয়া অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার সাথে সামনাসামনি কারো কোন কথা হয়নি। তখন ৮/১০ জন রোগী ছিল জরুরি বিভাগে।

হাসপাতালের তত্ত্বাধায়ক (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুর রহিম মড়ল বলেন, হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছে। ওই রোগী নিয়মিত ওয়ার্ডে যাওয়ার কথা না। জরুরি বিভাগে তার মৃত ঘোষণা হওয়ার কথা।