চলতি মৌসুমে আমন চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা সাড়ে ৯ হাজার মেট্রিক টন

অভ্যন্তরীণ খাদ্য মজুদ নিশ্চিত করতে জেলায় চলতি ২০১৭/২০১৮ আমন সংগ্রহ মৌসুমে ৯ হাজার ৭০৫ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত ইরি-বোরো মৌসুমে ৫২০ জন মিল মালিকের মধ্যে ২৮৫ জন মিল মালিক ধান ও চাল সরবরাহ করেছিলেন। এই ২৮৫ জনের মধ্যে গত সোমবার পর্যন্ত ২৬৩ জন মিল মালিক ৯ হাজার মেট্রিক টন চাল সরবরাহের জন্য চুক্তি সম্পাদন করেছেন। গত ৩ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া চাল সংগ্রহ অভিযান আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, অভ্যন্তরীণ খাদ্য মজুদ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে চলতি মৌসুমে জেলার পাঁচটি উপজেলায় ৯ হাজার ৭০৫ মেট্রিক টন আমন চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে জয়পুরহাট সদর উপজেলায় ১ হাজার ৯০৬ মে.টন ক্ষেতলাল উপজেলায় ১ হাজার ৬৪৩ মে.টন কালাই উপজেলায় ২ হাজার ৫৪৮ মে. টন আক্কেলপুর উপজেলায় ২৫৩ মে.টন ও পাঁচবিবি উপজেলায় ৩ হাজার ৩৫৫ মে. টন।

জলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, অভ্যন্তরীণ খাদ্য মজুদ নিশ্চিত করতে নিবন্ধিত সকল মিল মালিককে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত ২৬৩ জন মিল মালিক প্রায় ৯ হাজার মেট্রিক টন চাল সরবরাহের জন্য চুক্তি সম্পাদন করেছেন। বাজারে ধানের দাম বেশি এবং কৃষকের কথা চিন্তা করে সরকার এবার চালের মূল্য ৩৯ টাকা নির্ধারণ করেছে। গত বছরের তুলনায় কেজি প্রতি ৬ টাকা অতিরিক্ত।

জেলা কৃষি সম্পাসারণ অধিদপ্তর উপ-পরিচালক সুধেন্দ্রনাথ রায় জানান, ২০১৬-২০১৭ মৌসুমে জয়পুরহাট জেলায় রোপা আমন ধানের চাষ হয়েছে ৭২ হাজার ১৭০ হেক্টর জমিতে। এতে চালের উৎপাদন হয়েছে আড়াই লাখ মেট্রিক টনের বেশি।

Inline
Inline