ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’: বাগেরহাটে প্রস্তুত ২৩৪ আশ্রয়কেন্দ্র

বাগেরহাট সংবাদদাতা : বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় তিতলির প্রভাবে উপকূলীয় জেলা বাগেরহাটে মঙ্গলবার রাত থেকে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির সাথে হালকা বাতাস বইছে। নদীতে মাছ ধরার ট্রলারগুলো নিরাপদে অবস্থান করছে।

অন্যদিকে ঘূর্ণিঝড় তিতলি মোকাবেলা করতে জেলা প্রশাসন নানা প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।

বুধবার বিকালে জেলা প্রশাসকের কক্ষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি ঘূর্ণিঝড় তিতলি মোকাবেলায় করণীয় শীর্ষক এক প্রস্তুতি সভা হয়।

জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাসের সভাপতিত্বে সভায় প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা অংশ নেন।

সভা শেষে জেলা প্রশাসক সাংবাদিকদের বলেন, আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী ঘূর্ণিঝড় তিতলি উপকূলীয় জেলা বাগেরহাটের মংলায় আঘাত হানতে পারে। এই দুর্যোগ মোকাবেলা করতে প্রশাসনের প্রস্তুতি হিসেবে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি ইতিমধ্যে একটি জরুরি সভা করেছে। ওই সভায় দুর্যোগকালীন এবং দুর্যোগ পরবর্তী করণীয় নানা বিষয়ে আলোচনা করে প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া উপজেলাগুলোতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি জরুরি সভা করেছে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী ঘূর্ণিঝড় তিতলি উপকূলীয় জেলা বাগেরহাটের মংলায় আঘাত হানতে পারে, সেজন্য মংলা উপজেলাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে এই উপজেলার সকল মানুষ যাতে নিরাপদে ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিতে পারে সেজন্য তা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এজন্য সেচ্ছাসেবক, মেডিকেল টিম, ফায়ার সার্ভিসের একাধিক দল প্রস্তুত রয়েছে। বাগেরহাটের মংলা উপজেলা ছাড়াও অন্য আটটি উপজেলাকেও দুর্যোগ মোকাবেলা করতে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। উপকূলীয় জেলা বাগেরহাটে সরকারি বেসরকারি মিলে মোট ২৩৪টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র রয়েছে।