গোপালগঞ্জে কালী মন্দিরের মূর্তি ভাংচুর

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জ পৌর মহা শ্মশানের কালী মন্দিরের মূর্তি ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার রাত ১১ টার দিকে এ ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে গোপালগঞ্জ পৌরসভার মেয়র কাজী লিয়াকত আলী ও পুলিশ কর্মকর্তারা শ্মশান পরিদর্শন করেছেন।
গোপালগঞ্জ পৌর মহা শ্মশানের পূজারী চন্ডিদাস বিশ্বাস বলেন, আমি শ্মশান কালী মন্দিরের পিছনে একতলা ভবনে থাকি। রাত ১১টার দিকে মন্দিরে শব্দ শুনতে পাই। শব্দ শুনে মন্দিরে কারা জিজ্ঞাসা করলে তারা আমার ঘরের সামনে এসে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে বাইরে আসতে বলে এবং আমাকে হত্যার হুমকি দেয়। পরে আবার আসবো বলে তারা চলে যায়। সকালে মন্দিরে গিয়ে দেখতে পাই কালী মূর্তির বাম হাতের দুটি আংগুল ও মাথার ডান পাশের কিছু অংশ ভাঙ্গা। মন্দিরের মধ্যে একটা লম্বা বাঁশও দেখতে পাই। মন্দিরের গেটের বাইরে থেকেই তারা লম্বা ওই বাঁশ দিয়ে মূর্তি ভেঙ্গেছে বলে জানান ওই পূজারী।
গোপালগঞ্জ পৌর মহা শ্মশানের সভাপতি ভিষ্ণদেব মৃধা বলেন, বুধবার রাতে কে বা কারা শশ্মান কালী মন্দিরের কালি মূর্তি ভাংচুর করেছে। সকালে শ্মসানের পূজার চন্ডিদাস বিশ্বাসের কাছে খবর পেয়ে শশ্মানে ছুটে যাই এবং বিষটি পুলিশকে জানাই। তিনি আরো বলেন, আমরা এখানে হিন্দু মুসলমান খুবই সম্প্রীতির সাথে বসবাস করি। মহা শ্মশানে যতো ধর্মীও অনুষ্ঠান হয়, তাতে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে অংশগ্রহণ ও সহযোগীতা করে থাকে।
গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি (অপারেশন) বলেন, ভাংচুরের খবর পেয়ে আমরা শশ্মান পরিদর্শন করেছি। আমরা বিষটি খুব গুরুত্বের সাথে তদন্ত করে দেখছি। ঘটনার সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

Inline
Inline