গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ভবন ঝুঁকিপূর্ণ, মন্দিরের বারান্দায় চলছে ক্লাস

গোপালগঞ্জ সংবাদদাতা : গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে বিদ্যালয় ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় মন্দিরের বারান্দায় পাঠদান চলছে শিক্ষার্থীদের। কাশিয়ানী উপজেলার ১২৫নং নিজ সিংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনটি সংস্কারের অভাবে ৩ বছর ধরে গাছ তলায় মন্দিরের বারান্দায় ক্লাস করছেন ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।
জানা গেছে, বর্তমান বিদ্যালয়টিতে ৬৪ জন ছাত্র-ছাত্রী লেখাপড়া করছে, ৪ জন শিক্ষক কর্মরত রয়েছেন। ১৯৮২ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৯৩ সালে বিদ্যালয়ের পাঁকা ভবন নির্মাণ করা হয়। দীর্ঘ দিন যাবত সংস্কারের অভাবে বিদ্যালয়ের ভবন ব্যবহারের অনুপযোগী ঘোষণা করা হয়। ফলে দীর্ঘ ৩ বছর ধরে ছাত্র-ছাত্রীরা গাছ তলায় মন্দিরের বারান্দায় বসে ক্লাস করছে। এতে রোদ, বৃষ্টি ও ঝড়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। ব্যাহত হচ্ছে পাঠদান কার্যক্রম।
বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী অন্তরা বিশ্বাস জানায়, স্কুলের ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় তাদের মন্দিরের গাছ তলায় বসে ক্লাস করতে হয়। ঝড়-বৃষ্টি হলে ক্লাস করা যায় না।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি শিশির কুমার দত্ত বলেন, সংস্কারের অভাবে বিদ্যালয়ের ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এতে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিয়ত রোদ-বৃষ্টি উপেক্ষা মন্দিরের বারান্দায় ক্লাস করতে হচ্ছে।
বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিনা রানী রায় জানান, ১৯৯৩ সালে বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণ করা হলেও দীর্ঘ দিন সংস্কারের অভাবে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এতে ছাত্র-ছাত্রীদের মন্দিরের বারান্দায় বসিয়ে ক্লাস নেয়া হয়। বর্ষা মৌসুমে বইখাতা ও স্কুলের প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র নষ্ট হয়ে যায়। তিনি আরো বলেন, বিষয়টি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে লিখিত ভাবে কয়েকবার জানালেও সংস্কার বা পুনঃনির্মাণের কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি।
এ ব্যাপারে কাশিয়ানী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: মোজাম্মেল হক শাহ বলেন, স্কুল ভবন ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়টি ইউএনও স্যার ও মন্ত্রণালয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে চিঠির মাধ্যমে জানানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।