গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে জাল দলিলে সম্পত্তি দখলের চেষ্টা

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে জাল দলিল সৃজন করে সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। জাল দলিলের বিষয়টি জমির প্রকৃত মালিকরা নিশ্চিত হওয়ায় তাদেরকে মামলা দিয়ে হয়রানী করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। উপজেলার দক্ষিণ গ্রামের এ ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে জাল দলিলের বিরুদ্ধে গোপালগঞ্জ আদালতে মামলা করেছেন ওদুদ খান নামে এক ব্যক্তি।

মামলায় প্রকাশ, কাশিয়ানী উপজেলার দক্ষিণ ফুকরা গ্রামে ছবুরন নেছা ও তার ছেলে হান্নান খান কুড়ালিয়া মৌজার দখলীয় মালিকানা ৩১ শতাংশ জমি একই গ্রামের মোহাম্মাদ আলী মোল্লাকে বর্গা চাষ করতে দেন। এ সুযোগে মোহাম্মাদ আলী মোল্যা ভূয়া দাতা সাজিয়ে কাশিয়ানী সাব রেজিষ্ট্রারী অফিসে গিয়ে নিজ নামসহ তার ভাই আব্দুর রহমান মোল্লা, ছরোয়ার হোসেন মোল্লা, শাহজাহান মোল্লা ও মাতা আলেকজান বেগমের নামে জাল দলিলের মাধ্যমে লিখে নেন। হঠাৎ একদিন মোহাম্মাদ আলী মোল্লা জমির মালিক হান্নান খানের চাচা ওদুদ খানের বাড়িতে এক সালিশ বৈঠকের আয়োজন করেন। সালিশীতে তার দলিল সঠিক বলে জমির মালিকানা দাবি করেন মোহাম্মাদ আলী। পরে ওদুদ খান ওই দলিলের সই মুহুরীর নকল উঠিয়ে জাল দলিলের বিষয়টি নিশ্চিত হন। এ ব্যাপারে ওদুদ খান বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ আদালতে ৭ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

এদিকে, গত ১৯ জানুয়ারী গভীর রাতে ওই সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ওদুদ খানের বাগানের ২১ মেহগনি গাছের মাথা কেটে ফেলেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে।