‘গুরুতর অসুস্থ’ খালেদার সাক্ষাৎ পাননি স্বজনরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অসুস্থতার মাত্রা আরও বেড়েছে। স্বজনরা কারাগারে গিয়েছিলেন তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে। তবে অসুস্থতা গুরুতর হওয়ায় সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ পাননি তারা।

শনিবার বিকালে খালেদা জিয়ার পাঁচ স্বজন পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়াকে দেখতে যান। তবে বেশি অসুস্থ হওয়ায় তারা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা না করেই ফিরে আসেন। পরে কারাফটকে অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তারা।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে বিএনপিপ্রধানের সঙ্গে দেখা করতে যান তার বোন সেলিনা ইসলাম, তার স্বামী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, খালেদা জিয়ার ভাগনে ডা. মামুন, আরেক ভাগনে সাইফুল ইসলাম ডিউকের স্ত্রীসহ পাঁচজন। তারা সবাই কারাগারে প্রবেশ করলেও খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কারণে সাক্ষাৎ হয়নি।

শায়রুল জানান, খালেদা জিয়া এতোটাই অসুস্থ যে, দোতলা থেকে যে রুমে এসে সাক্ষাৎ করতে হয়, সেখানেও তিনি আসতে পারেননি।

সবশেষ গত ৩০ জুন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন তার স্বজনেরা। এর আগেও বিএনপি প্রধান অসুস্থ বলে দাবি করেছিলেন তার স্বজন ও বিএনপির নেতারা। সে পরিপ্রেক্ষিতে বিএনপি প্রধানকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা সেবা দিতে দলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়। তবে কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেয়, বিধি অনুযায়ী কারাবন্দি খালেদাকে সরকারি হাসপাতালেই চিকিৎসা নিতে হবে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এবং সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসা নিতে খালেদা জিয়া সায় দেননি।

চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হয় খালেদা জিয়ার। রায়ের পর থেকে তিনি নাজিম উদ্দিন রোডের পুরোনো কারাগারেই আছেন। যে মামলায় দণ্ড পেয়েছেন সেই মামলায় জামিন হলেও অন্য মামলায় তিনি মুক্তি পাননি।