গাবতলীতে পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে এক ডাকাত নিহত

বগুড়া সংবাদদাতা : বগুড়ার গাবতলীতে রাতের আঁধারে সড়কে গাছ কেটে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে খায়রুল ইসলাম(৩০) নামের এক ডাকাত নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে তিনজন পুলিশ।
বুধবার (১৫ আগষ্ট) দিবাগত রাতে উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের কুচিয়ামারী ব্রীজের কাছে এই ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, আগামী কুরবানী ঈদকে সামনে রেখে গাবতলী মডেল থানার ওসি খায়রুল বাসার উপজেলার বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে রাতের বেলায় টহল পুলিশের ব্যবস্থা জোরদার করে। বুধবার (১৫ আগষ্ট) রাতে একদল পুলিশ সুখানপুকুর-সৈয়দ আহম্মেদ সড়কে টহল দিচ্ছিল। রাত আড়াই টায় উল্লেখিত কুচিয়ামারী ব্রীজ এলাকায় খায়রুলের নেতৃত্বে ৫/৭ জনের একদল ডাকাত কয়েকটি গাছ কেটে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। বিষয়টি টের পেয়ে ওই টহলরত পুলিশ থানা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের খবর দেয়। এরপর পুলিশের দল ঘটনাস্থলে পৌঁছালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতদল এলোপাতারী গুলি ছোঁড়ে। এ সময় এসআই জাহিদ, এএসআই আওয়াল ও হাবিব নামের ৩ জন পুলিশ আহত হয়। পুলিশও পাল্টা ৫ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। এতে খায়রুল গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হলে রাত ৩টা ২০মিনিটে বগুড়া শজিমেক হাসাপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় খায়রুল বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা ২০মিনিটে মারা যায়। ময়না তদন্তের জন্য খায়রুলের লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
পুলিশ জানায়, খায়রুল গাবতলীর রামেশ্বরপুর ইউনিয়নের জাইগুলি গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে। তবে বর্তমানে সে উপজেলার নাড়ুয়ামালা ইউনিয়নের প্রথমারছেও গ্রামে বসবাস করছিলো। খায়রুলের বিরুদ্ধে ৩টি ডাকাতির মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানায়।