গাবতলীতে ট্রাক চালকের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় সৎ ভাইসহ ৫জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা

মুহাম্মাদ আবু মুসা বগুড়া থেকে : বগুড়ার গাবতলীতে সেফটি ট্যাংকি থেকে ট্রাক চালক সুমন মিয়া (২৫) এর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় নিহতের সৎ ভাই আবুল কালাম আজাদকে প্রধান করে ৫জনের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহতের পিতা সিরাজুল হক বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার রাতেই মামলাটি দায়ের করেন। মামলার অন্যান্য আসামীরা হলো একই গ্রামের প্রতিবেশী আনজু আনোয়ার, সোহান, রন্জু ও আরিফুল। তবে শুক্রবার সন্ধ্যায় এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত হত্যার সাথে জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এ ব্যাপারে থানার ওসি সেলিম হোসেন ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি অপারেশন আব্দুল গণির সাথে কথা বললে তাঁরা হত্যা মামলাটি দায়ের হওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন এখনো কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব না হলেও আমাদের অভিযান অব্যহত রয়েছে।
উল্লেখ্য, উপজেলার দক্ষিণপাড়া ইউনিয়নের কৃষ্ণচন্দ্রপুর বাঙ্গালপাড়া গ্রামের সিরাজুল হক সরকারের ছেলে ট্রাক চালক সুমন মিয়া গত ৯ জুন রাত ৯টায় খাবার খেয়ে বাড়ী থেকে বের হলে আর বাড়ী ফিরে আসেনি। এর পর পরিবারের লোকজন তাকে বহু খোঁজাখুজি করে না পেয়ে ১০জুন গাবতলী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেন। গত বৃহস্পতিবার নিহত সুমনের বাড়ির পার্শ্বে মোসলেম উদ্দিনের ছেলে সাজু মিয়ার রিং স্লাব ল্যাট্রিনের সেফটি ট্যাংকির ভিতর থেকে দুর্গন্ধ বের হতে থাকে। বিষয়টি গ্রামবাসী সাজুকে তার ল্যাট্রিনের ভেতর দেখতে বললে সাজু ল্যাট্রিনের কাছে গেলে ব্যাপক দুর্গন্ধ পায়। এরপর ল্যাট্রিনের উপরের ঢাকনা সরাতেই লাশের পা ভেসে উঠে। এর পর এলাকার লোকজন থানায় সংবাদ দিলে থানার ওসি সেলিম হোসেন ছাড়াও অন্যান্য কর্মকর্তাসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে সুরত হাল রির্পোট তৈরী করে ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়ে দেন।