গত অর্থবছরে দেশে ৩ কোটি ৮৬ লাখ ৯১ হাজার মেট্রিক টন খাদ্য শস্য উৎপাদিত হয়েছে : কৃষিমন্ত্রী

সংসদ ভবন, ১৯ জুন, ২০১৮ : কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, সরকারের কৃষিবান্ধব নীতির ফলে গত অর্থবছরে দেশে ৩ কোটি ৮৬ লাখ ৯১ হাজার মেট্রিক টন খাদ্য শস্য উৎপাদিত হয়েছে।
তিনি আজ সংসদে সরকারি দলের আমিনা আহমেদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।
কৃষিমন্ত্রী বলেন, উৎপাদিত শস্যের মধ্যে উল্লেখিত অর্থবছরে চাল ৩ কোটি ৩৮ লাখ ২ হাজার টন, গম ১৩ লাখ ১১ হাজার টন এবং ভুট্টা ৩৫ লাখ ৭৮ হাজার টন উৎপাদন হয়েছে।
মতিয়া চৌধুরী বলেন, বর্তমান সরকার রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে কৃষি খাতকে গতিশীল করতে আন্তরিকভাবে কাজ করে চলেছে। এর ফলে বাংলাদেশ খাদ্য ঘাটতি থেকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে।
মন্ত্রী বলেন, কৃষি উৎপাদন বাড়াতে সরকারের পদক্ষেপ বাস্তবায়নের ফলেই বর্তমান সরকারের সময়ে অসামান্য সফলতা অর্জিত হয়েছে। চাল, গম, ভুট্টাসহ সকল প্রকার ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রয়েছে।
মতিয়া চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ ১৯৯৬ সালে রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলার লক্ষ্যে কৃষি উন্নয়নকে প্রাধান্য দিয়েছে। এর ফলে কৃষি উন্নয়নে ধারাবাহিক সফলতাও পাওয়া যাচ্ছে।
তিনি বলেন, ১৯৯৫-৯৬ অর্থবছরে চাল ১ কোটি ৭৬ লাখ ৮ হাজার মেট্রিক টন, গম ১৩ লাখ ৬৯ হাজার মেট্রিক টন এবং ভুট্টা ৩ হাজার মেট্রিক টন, ২০০১-০২ অর্থবছরে চাল ২ কোটি ৪৩ লাখ মেট্রিক টন, গম ১৬ লাখ ৬ হাজার মেট্রিক টন এবং ভুট্টা ৬৪ হাজার মেট্রিক টন, ২০০৮-০৯ অর্থবছরে চাল ৩ কোটি ১৩ লঅখ ১৭ হাজার মেট্রিক টন, গম ৮ লাখ ৪৯ হাজার মেট্রিক টন এবং ভুট্টা ৭ লাখ ৩০ হাজার মেট্রিক টন উৎপাদিত হয়েছে।
কৃষিমন্ত্রী বলেন, কৃষিভিত্তিক শিল্প ও প্রযুক্তি নির্ভর কৃষি গড়তে সরকার বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।
তিনি বলেন, মানসম্মত বীজ সরবরাহ ও এর সহজলভ্যতা বা প্রাপ্যতা নিশ্চিতকরণে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। বিভিন্ন ফসলের হাইব্রিড ও উচ্চ ফলনশীলজাতের ব্যবহারে বৃদ্ধিকরণ করা হয়েছে।