খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অভিযানে গ্রেপ্তার ৪

জেলা সংবাদদাতা : খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালিত হয়। পৃথক অভিযানে মাদকসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

১০ সেপ্টেম্বর থেকে ১১ সেপ্টেম্বর দুইদিন ব্যাপী নগরীর খালিশপুর, তেরখাদা ও দিঘলিয়ায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হচ্ছে- মোঃ আশিক শেখ, আছাদ সরদার(৫০), বিশ্বজিৎ সাহা(৫০) এবং মোঃ রফিকুল ইসলাম(৫২)। এদের মধ্যে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে আছাদ সরদারকে এক বছরের কারাদন্ড এবং বিশ্বজিৎ সাহাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করা হয়। এ সময় আটকৃতদের কাছ থেকে ইয়াবা, ফেনসিডিল এবং ডিনেচার্ড স্পিরিট উদ্ধার করা হয়।

পরবর্তীতে দিঘলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ হাফিজ-আল-আসাদ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে তাদেরকে জেল-জরিমানা প্রদান করেন।

খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সূত্র মতে, বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) সংস্থার উপ-পরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে ‘খ’ সার্কেলের পরিদর্শক মোঃ সাইফুর রহমান রানার নেতৃত্বে একটি টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তেরখাদা উপজেলায় শেখপুরামধ্যপাড়া ৬নং ওয়ার্ডে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় ওই এলাকার বাসিন্দা মৃত বাদশা শেখের পুত্র মোঃ আশিক শেখকে ৩৫ পিস ইয়াবাসহ আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে তেরখাদা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। অপরদিকে ১০ সেপ্টেম্বর দিঘলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ হাফিজ-আল-আসাদ এর নেতৃত্বে দিঘলিয়া উপজেলার মোচন্দপুর গ্রামে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ওই এলাকার বাসিন্দা মৃত পিরু সরদারের পুত্র আছাদ সরদারকে ২শ’ গ্রাম গাজাসহ আটক করেন। এছাড়া একই উপজেলায় গাজীর হাট বাজার থেকে নলীকান্তি সাহার পুত্র বিশ্বজিৎসাহাকে ৫০ লিটার ডিনেচার্ড স্পীটসহ আটক করা হয়।

পরবর্তীতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে তাদেরকে জেল-জরিমানা প্রদান করা হয়। অন্যদিকে নগরীর খালিশপুর থানাধীন বয়রা কলেজ রোড এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন ‘খ’ সার্কেলের একটি টিম। এ সময় ওই এলাকার বাসিন্দা হারুন অর রশিদের পুত্র মোঃ রফিকুল ইসলাম বাবলুকে ২২ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করা হয়। এ সময় আরো ২০ বোতল ফেনসিডিলের খালি বোতল উদ্ধার করা হয়। এর বিরুদ্ধে খালিশপুর থানায় একটি মাদকের আইনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।