খুলনায় পাটের বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

বি এম রাকিব হাসান, খুলনা বিশেষ প্রতিনিধি : দীর্ঘদিন পর পাট গবেষনা ইনস্টেটিউটের সার্বিক সহযোগীতায় খুলনার দাকোপে গতবারের ন্যায় এবারও ৫ একর জমিতে লবনাক্ত সহিষ্ণুতা পাটের চাষ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় পাটের ফলনও হয়েছে বাম্পার।
সরেজমিনে এলাকার কৃষকদের সাথে আলাপ করে জানা যায়, এ উপজেলায় আশির দশকের পর থেকে পাটের চাষ আর তেমন একটা চোখে পড়েনি। গতবারের তুলনায় এবারও পাট গবেষনা ইনস্টেটিউটের সার্বিক সহযোগীতায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ৫০জন চাষী ৫একর জমিতে পাটের চাষ করেছে। প্রত্যেক চাষীকে লবনাক্ত সহিষ্ণুতা পরীা মূলক পাটের চাষ করতে বীজ ক্রয়, জমি প্রস্তুত, সার, কীটনাশকসহ সার্বিক সহযোগীতা করেছে পাট গবেষনা ইনস্টেটিউট। বাজুয়া এলাকার কৃষক ফনিভূষন মন্ডল বলেন এবার তিনি ৩ বিঘা জমিতে পাটের চাষ করেছেন। তার পাটের ফলনও হয়েছে খুব ভাল। এখনও পর্যন্ত তার পাট কাটা চলছে। এবার তিনি প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ মন পাট পাবেন বলে তার ধারনা এবং দামও মন প্রতি প্রায় ১৫‘শ থেকে ১৬‘শ টাকা। আগামীতে পাটের চাষ আরো বাড়তে পারে বলে তিনি আশা করেন। উপজেলা সিনিয়র কৃষি অফিসার মোঃ মোছাদ্দেক হোসেন বলেন পাট গবেষনার সহায়তায় লবনাক্ত সহিষ্ণুতা পাটের চাষে কৃষকরা ভাল ফলন পেয়েছে। আগামীতে পাট চাষ যাতে আরো বৃদ্ধি পায় সে লে গোটা এলাকার কৃষকদের উৎসায়ীতো করা হবে। পাট গবেষনা ইনস্টেটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. রনজিত কুমার ঘোষ বলেন এবছর দেশী জাতের পাটের ফলন ভাল হয়েছে। আগামীতে পাট চাষ বৃদ্ধি করতে আমরা সরকারের কাছে আরো সহযোগীতা চেয়েছি। সহযোগীতা পেলে কৃষি অফিসের মাধ্যমে এলাকার আরো অনেক বেশি কৃষকদের পাট চাষে সকল প্রকার সহায়তা করা হবে।