খুলনায় তিন দিনব্যাপী লোকজ নৃত্য ও বাদ্য উৎসব শুরু

আ. রাজ্জাক শেখ, খুলনা প্রতিনিধি : খুলনায় তিন দিনব্যাপী লোকজ নৃত্য ও বাদ্য উৎসব আগামীকাল বৃহস্পতিবার শুরু হবে। খুলনা জেলা শিল্পকলা একাডেমী, বাংলাদেশ নৃত্য শিল্পী সংস্থা ও নাট্যদলের সহযোগিতায় উৎসবের আয়োজন করছে খুলনার আব্বাস উদ্দিন একাডেমীর নৃত্যবিভাগ নৃত্যবিহার। মহানগরীর শহীদ হাদিস পার্কে ওই বিকেল সাড়ে ৪টায় উৎসব উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও ছোটদের নৃত্যানৃষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ নৃত্যশিল্পী সংস্থার কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মিনু হক। সন্ধ্যায় উদ্বোধন ঘোষনা ও আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিজান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি থাকবেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক শেখ সোহেল, বিশিষ্ট কত্থক নৃত্য গুরুসাজু আহমেদ। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন নৃত্যবিহারের প্রধান নির্বাহী এনামুল হক বাচ্চু। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখবেন জেলা কালচারাল অফিসার সুজিত কুমার সাহা। অনুষ্ঠিনে সভাপতিত্ব করবেন উৎসব উদযাপন কমিটির আহবায়ক চৌধুরী মিনহাজ উজ্জামান সজল। নৃত্যানুষ্ঠানে ভারত, ঢাকা ও খুলনার স্থানীয় শিল্পী সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত শিল্পীরা নৃত্য পরিবেশন করবেন। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিন বিকাল ৫টায় ছোটদের নৃত্যানৃষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। সন্ধ্যায় আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন খুলনা জেলা প্রশাসক আমিন উল আহসান। এতে সভাপতিত্ব করবেন বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশন এবং বিভাগীয় প্রধান (সংগীত) কামরুল ইসলাম বাবলু। নৃত্যানুষ্ঠানে ভারত, ঢাকা ও খুলনার স্থানীয় শিল্পী সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত শিল্পীরা নৃত্য পরিবেশন করবেন। উৎসবের শেষ দিন বিকেল ৫টা ছোটদের নৃত্যানৃষ্ঠান । সন্ধ্যা আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন খুলনা সিটি মেয়র মনিরুজ্জামান মনি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বাংলাদেশ নৃত্যশিল্পী সংস্থার সভাপতি মোস্তাক সেলিম পপলু । নৃত্যানুষ্ঠানে ভারত, ঢাকা ও খুলনার স্থানীয় শিল্পী সহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত শিল্পীরা নৃত্য পরিবেশন করবেন। আয়োজন প্রসঙ্গে নৃত্যবিহারের প্রধান নির্বাহী এনামুল হক বাচ্চু বলেন, প্রকৃত পৃষ্ঠপোষকের অভাবে নৃত্যশিল্প আজো পিছিয়ে। সঠিক ভাবে উপস্থাপন করতে না পারায় আমরা আজ বিশ্ব মানে পৌছুঁতে পারছিনা।এ দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় বিনোদন মাধ্যম নৃত্য শিল্পীদের পেশাদারিত্ব এবং সেই সাথে তার আর্থিক মুল্যায়ন বৃদ্ধি করতে পারলে, শুধু শিল্পীদের জীবনমান উন্নতই নয়,বিদেশ থেকেও প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব। প্রয়োজন শুধু সময়য়োপযোগী ও পেশাদারী মনভাব নিয়ে সাহসী কিছু উদ্যোগতার। দক্ষ শিল্পী তৈরী ও সময়োপযোগী নৃত্যানুষ্ঠান নির্মানের মাধ্যমে দেশ-বিদেশে নৃত্যের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি এবং এর আর্থিক মুল্যায়ন বাড়ানোই আমাদের লক্ষ্য।