খুলনায় কলেজছাত্রীর আত্মহনন মামলায় ছাত্রনেতা রিমান্ডে

খুলনার দাকোপ উপজেলার বাজুয়া এলবিকে সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী জয়ী মন্ডলের (২০) আত্মহত্যার প্ররোচণার মামলায় বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা ইনজামামুল হক মির্জাকে একদিনের রিমান্ডে দিয়েছে আদালত।

পুলিশের সাতদিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে আজ বৃহস্পতিবার খুলনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আহমেদ এ আদেশ দিয়েছেন।

গত ১২নভেম্বর খুলনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আসামি ইনজামামুল আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে তা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন একই আদালত। ১৩নভেম্বর পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৭দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণী থেকে জানা গেছে, গত ৫নভেম্বর ছাত্রলীগ নেতা ইনজামামুল হক মির্জা জনসম্মুখে কলেজ জয়ীকে মারধর করেন। অপমান সইতে না পেরে জয়ী আত্মহত্যা করে।

৬ নভেম্বর সকাল ৯টার দিকে কলেজের হোস্টেলের কক্ষ থেকে ওই ছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

জানা যায়, বাজুয়া এসএন কলেজের ছাত্রলীগ সভাপতি ইনজামামুল হক মির্জা তাকে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করতেন। এঘটনায় নিহতের বাবা কুমারেশ মন্ডল বাদী হয়ে দাকোপ থানায় ৭নভেম্বর ইনজামামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত ইনজামামুল হক মির্জা ওই এলাকার মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে।
এঘটনার পরপরই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বাজুয়া এসএন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতির পদ থেকে ইনজামামুল হক মির্জাকে বহিষ্কার করা হয়।