খালেদা লন্ডনে কী করেন, জানতে পেরেছেন হাছান

নিজস্ব প্রতিবেদক : যুক্তরাজ্য সফরে যাওয়া বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গত এক সপ্তাহের কর্মকাণ্ড দিয়ে তেমন কোনো সংবাদ আসেনি গণমাধ্যমে। আওয়ামী লীগ নেতা হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, বিএনপি নেত্রী লন্ডনে কী করছেন, সেটা তিনি জানতে পেরেছেন।রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন। মানববন্ধনের আয়োজন করে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ নামে একটি সংগঠন।গত ১৫ জুলাই যুক্তরাজ্যে গেছেন খালেদা জিয়া। তিনি কবে ফিরবেন, সেটা নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না দলের নেতারা। আওয়ামী লীগের নেতারা দাবি করছেন, দুর্নীতি মামলা থেকে বাঁচতে খালেদা জিয়া লন্ডনে পালিয়ে গেছেন।হাছান মাহমুদ বলেন, ‘খালেদা জিয়া এবার দীর্ঘ সময়ের জন্য বিদেশে গিয়েছেন। বিদেশে গিয়ে তিনি চিকিৎসা বা তার নাতি নাতনিদের সঙ্গে কোন ব্যস্ততা নাই। তিনি বিদেশে গিয়ে আবার ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন।’‘আমরা জানতে পেরেছি খালেদা জিয়া লন্ডনে গিয়ে বিভিন্ন সন্ত্রাসী ও জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। আগামী জাতীয় নির্বাচনে নিয়ে এই সব জঙ্গি সংগঠনগুলোর সঙ্গে বৈঠক করে ষড়যন্ত্র করছেন।’‘ইতিপূর্বে খালেদা জিয়া যতবার তার পুত্রের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছে ততবারই দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করেছেন। খালেদা জিয়া বিদেশে গিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য আবার ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন।’‘বিএনপি সব সময় ষড়যন্ত্রের রাজনীতি করে। তারা এখন জনগণের কাছ থেকে দূরে চলে গেছে। এখন খালেদা জিয়া জানেন মানুষ নির্বাচনে বিএনপিকে প্রত্যাখ্যান করবে। তাই এখন তিনি ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছেন’-বলেন হাছান মাহমুদ।খালেদা জিয়া লন্ডন থেকে ফিরলে বিমান বন্দর থেকেই তাকে গ্রেপ্তারের দাবিও জানানো হয় মানববন্ধনে। হাছান বলেন, ‘বিএনপি নেত্রী ১৫০ দিন মামলার হাজিরা দেন নাই। তিনি আদলতকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েছেন এবং তিনি আদালতের নির্দেশ না নিয়েই বিদেশে গিয়েছেন। তাই আমি সরকারের কাছে দাবি জানাব খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তার পরোয়ানা জারি করে, তিনি বিমানবন্দরে আসলে তাকে গ্রেপ্তার করা হোক।’বিএনপি নেতাদেরকে উদ্দেশ্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আমি বিএনপি নেতাদের বলব বিএনপিকে বাঁচাতে হলে আপনারা এখন খালেদে জিয়াকে পরিহার করুন। কারণ খালেদা জিয়া এখন আপনাদের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে।’বাংলাদেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বলেন, ‘আজ থেকে আট বছর আগে যে ছেলেটি বিদেশে গিয়েছিল সে এখন বিমান থেকে কুড়িল ফ্লাইওভারগুলো দেখলে ভুলে করে মনে করে এইটা সিঙ্গাপুর। আট বছর আগে যে ছেলেটি গ্রাম থেকে বিদেশ গিয়েছিলো সে এখন গ্রামের মেঠো পথগুলোকে রাজপথে পরিবর্তন হতে দেখে অবাক হয়ে যায়।’ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিকের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা ও আওয়ামী লীগ নেতা এমএ করিম প্রমুখ।