খালেদা জিয়ার টুইট দেখে টুইট প্রতিষ্ঠাতাসহ কর্মকর্তারাও হাসেন: হাছান মাহমুদ

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার টুইট দেখে টুইটের প্রতিষ্ঠাতা ও কর্মকর্তারাও হাসেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ এমপি। মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার টুইট অ্যাকাউন্ট আছে সেটা ভালো। সেখানে তিনি আবার টুইটও করেন। কিন্তু এই টুইট কি তিনি নিজে করেন নাকি অন্য কেউ করে দেন? বেগম খালেদা জিয়ার টুইট করা দেখে মনে হয় টুইটের প্রতিষ্ঠাতা, কর্মকর্তারাও হাসেন।

‘২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি বিএনপি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ না করা তাদের একটি ভুল ছিল’ বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাম্প্রতিক বক্তব্যকে অভিনন্দন জানিয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তিনি নিজেই স্বীকার করেছেন নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করা তাদের একটি ভুল ছিল। ৫ই জানুয়ারি বিএনপি গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালন করেছে। অাসলে তাদের উচিৎ ছিল ৫ই জানুয়ারি বিএনপির আত্মহত্যা দিবস পালন করা।

‘আমরা অবশ্যই নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবো’ বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাম্প্রতিক বক্তব্যকে অভিনন্দন জানিয়ে সাবেক বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আপনি বলেছেন আগামী নির্বাচনে অবশ্যই অংশ গ্রহণ করবেন। আপনাকে স্বাগতম জানায়। আশা করি আপনি কয়েক দিন পর বলবেন শেখ হাসিনার অধিনে আমরা অবশ্যই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো। কারণ আপনার আবদার অনুযায়ী সংবিধান পরিবর্তন হবে না। ভারতে যে ভাবে নির্বাচন হয়, ইংল্যান্ডে যে ভাবে নির্বাচন হয়, অস্ট্রেলিয়ায় যে ভাবে নির্বাচন হয়, জাপানে যে ভাবে নির্বাচন হয়, বাংলাদেশে সে ভাবেই নির্বাচন হবে এবং নির্বাচনকালিন সময়ে সংবিধান অনুযায়ী শেখ হাসিনাই দেশের প্রধানমন্ত্রী থাকবেন এবং নির্বাচন কমিশনের অধিনেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

ঘোলা পানিতে মাছ না ধরতে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, যখন কেউ পানি বেশি ঘোলা করে তখন সেই পানির অনেক মাছ মরে যায়। আপনারা পানি বেশি ঘোলা করবেন না। পানি বেশি ঘোলা করলে নিজেরাই সেই ঘোলা পানির মধ্যে আটকে যাবেন। আপনারা যে পেট্রল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করেছেন আবার যদি পেট্রল বোমা মারার চেষ্টা করেন সেই বোমার আগুনে আপনারাই পুড়ে যাবেন।

আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি আব্দুল মতিন ভূইয়ার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ফাল্গুনী হামিদ, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান প্রমুখ।