খালাস চেয়ে খালেদার আপিল শুনানি আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার করা আপিল শুনানি আজ রবিবার আবার অনুষ্ঠিত হবে। দুপুর দুইটায় ষষ্ঠ দিনের মতো শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

গত বুধবার পঞ্চম দিনের মতো শুনানি শেষে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ পরবর্তী শুনানির জন্য আজকের দিন ধার্য করেছিলেন।

সেদিন আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী আব্দুর রেজাক খান ও এ জে মোহাম্মদ আলী। তাদের সঙ্গে ছিলেন জয়নুল আবেদীন, এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন, একেএম এহসানুর রহমান প্রমুখ। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

শুনানিতে আব্দুর রেজাক খান মামলার ২, ৩, ৪, ৫, ১২, ২৭, ২৯ নম্বর সাক্ষীকে জেরা ও জবানবন্দির অংশ পরে খালেদা জিয়ার পক্ষে তুলনামূলক যুক্তি উপস্থাপন করেন। তার মূল বক্তব্য ছিল, সাক্ষীদের জবানবন্দিতে এ মামলার বিষয়বস্তুর সঙ্গে খালেদা জিয়ার কোনও সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি। বিচারিক আদালতে সন্দেহাতীতভাবে সরকার পক্ষ এ মামলা প্রমাণে ব্যর্থ হয়েছে। ট্রাস্টের নামে যে অ্যাকাউন্ট ছিল, তার টাকা সেখানেই রয়ে গেছে। এখানে আত্মসাতের কোনও অভিপ্রায় দেখানো হয়নি। তা প্রমাণিতও হয়নি। এরপর শুনানি শেষ হলে আদালত রবিবার দুপুর দুইটা পর্যন্ত মামলা কার্যক্রম মুলতবি রাখার আদেশ দেন।

মামলায় বিচারিক আদালতের রায়ের পাঁচ মাসের মাথায় গত ১২ জুলাই হাইকোর্টে করা এ আপিলের ওপর শুনানি শুরু হয়। পর্যায়ক্রমে ১৫, ১৬, ১৭ ও ১৮ জুলাই মোট পাঁচদিন খালেদা জিয়ার আপিলের ওপর হাইকোর্টে শুনানি হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন বিচারিক আদালত। এরপর থেকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন তিনি।