কড়াইল বস্তিতে এরশাদের প্রচারণায় নেতাকর্মীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের অনুপস্থিতিতে রাজধানীর কড়াইল বস্তিতে লাঙ্গল মার্কার পক্ষে প্রচারণায় চালিয়েছেন নেতাকর্মীরা।

বুধবার (১২ ডিসেম্বর) বিকেলে কড়াইল বস্তিতে এরশাদের পক্ষে প্রচারণায় অংশ নেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এসএম ফয়সল চিশতীর নেতৃত্বে একটি দল। তারা বস্তিতে লিফলেট বিতরণ করে এরশাদের জন্য ভোট ও দোয়া চান।

প্রচারনায় অংশ নিয়ে ফয়সল চিশতী সাংবাদিকদের বলেন, মঙ্গলবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছি। প্রচারণার আজ দ্বিতীয় দিন। আমরা মনে করি বিগত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো এইচএম এরশাদ এ আসনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন। সাধারণ মানুষ ব্যাপক সাড়া দিচ্ছে। এরশাদ অন্যান্য এলাকার মত এখানেও খুবই জনপ্রিয়। তিনি জেলখানা থেকেও পাঁচটি আসনে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

‘এ আসনে আরও যারা প্রতিদ্বন্দিতা করছেন তাদের মধ্যে একজন সিনেমার সাবেক নায়ক। কিন্তু পল্লীবন্ধু এরশাদ রাজনীতির মাঠে মহানায়ক। আরেকজন সে আমাদের ভাতিজা মানুষ, তার সম্পর্কে আমরা কিছু বলতে চাই না।‘

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৭ আসন থেকে লড়তে প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন ১০ প্রার্থী। ঢাকা-১৭ আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক পেয়েছেন আকবর হোসেন পাঠান ফারুক। ধানের শীষ পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির-বিজেপির আন্দালিব রহমান পার্থ। এ আসনের অন্য প্রার্থীদের প্রতীক হলো- জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ (লাঙ্গল), প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের আলী হায়দার (বাঘ), বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের এসএম আবুল কালাম আজাদ (টেলিভিশন), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের এসএম আহসান হাবিব (মই), জাকের পার্টির কাজী মো. রাশিদুল হাসান (গোলাপ ফুল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. আমিনুল হক তালুকদার (হাতপাখা), বিকল্পধারা বাংলাদেশের লে. কর্নেল ডা. অব. এ কে এম সাইফুর রশিদ (কুলা)। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সিংহ মার্কায় নির্বাচন করবেন তৃণমূল বিএনপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা।

প্রসঙ্গত তফসিল অনুযায়ী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ দেয়ার পর থেকে প্রার্থী ও নেতা কর্মীরা প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন।