ক্ষমতাসীনরা মানুষের অশ্রুর মূল্য দেয় না: মান্না

নিজস্ব প্রতিবেদক : নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ফেনীর সোনাগাজীতে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির কথা মনে হলে অন্তর কেঁপে ওঠে। যারা ক্ষমতায় আছে, তাদের কাছে আবেদন-নিবেদন করে কোনো কাজ হবে না। ওরা মানুষের অশ্রুর কোনো মূল্য দেয় না।

সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে আদর্শ নাগরিক আন্দোলন-এর তৃর্তীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মান্না বলেন, নুসরাতকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাকারী অধ্যক্ষের এটা যদি প্রথম কাজ হতো তাহলে একটা কথা ছিল। কিন্তু এর আগে ওই অধ্যক্ষ এক ছাত্রীকে নির্যাতন করেছেন। কিন্তু যারা ক্ষমতায় আছে, তারা সেটাকে ধামাচাপা দিয়েছে।

দেশে খুন-ধর্ষণ-অত্যাচার হচ্ছে কিন্তু সরকার কোনো বিচার করছে না অভিযোগ জানিয়ে মান্না বলেন, যারা মানুষের অধিকার রক্ষা করতে পারে না, মানুষের সুষ্ঠু বিচার করতে পারে না, তারা যাই করুক আমাদের সরকার নয়। তারা নির্বাচিত নয়। তারা ডাকাতি করে ক্ষমতায় এসেছে। তাদেরকে মানবো না। তাদের বিরুদ্ধে লড়াই করাই আমাদের কাজ।

দেশের মানুষের মধ্যে হতাশা সৃষ্টি হয়েছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাবেক এই নেতা বলেন, তারা কখনও ভাবেনি ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে ভোট ডাকাতি হবে। ভোট ডাকাতি না হলে জনগণ ভোট দিতে পারতো।সারা বিশ্ব অবাক হতো যে, ১০ বছর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় ছিলৎ, তারপরেও তারা ১০টি সিট পেত না। কিন্তু তারা ঐক্যফ্রন্টকে ৮টি সিট দিয়ে বাকিগুলো ডাকাতি করে নিয়েছে। ওরা ডাকাত, চোর। এ ভোট ডাকাতি কতদিন চলবে? যতদিন না চোরদের হাত ভাঙতে পারবেন, ডাকাতদের টুটি চেপে ধরতে না পারবে, ততদিন পর্যন্ত তারা থাকবে।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্যে মান্না বলেন, আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় তিন মাস অতিবাহিত হয়ে গেল, কিন্তু আপনারা একটা আন্দোলন করতে পারলেন না। ৩০ ডিসেম্বর ভোট ডাকাতি নির্বাচনের প্রতিবাদে আন্দোলন করতে পারতেন। করতে পারলেন না । এটা কার দোষ? আমার দোষ ,আপনার দোষ। তাই বলি সবাই আবার ভাবেন। এ রকম একটি অপ্রিয় সরকার ১০ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকতে পারে না।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে অ্যাডভোকেট মো. আল আমিন এবং খন্দকার মো. মহিউদ্দিন মাহির সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।