কোটা বাতিল নয় সংস্কারের পক্ষে সংসদীয় কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিল নয় সহজ ও সংস্কার করার পক্ষে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

আজ রবিবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় কমিটি এই মত দেয় বলে জানান কমিটির সভাপতি এইচ এন আশিকুর রহমান।

বৈঠক শেষে আশিকুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের কথা বলেছেন। কিন্তু আমাদের কিছু দায়বদ্ধতা রয়েছে। দেশ, ইতিহাস, আঞ্চলিকতা, পিছিয়ে পড়া নৃগোষ্ঠীর প্রতি আমাদের দায় আছে। এ ছাড়া সংবিধানে সমতার কথা বলা আছে। এসব বিবেচনা করে আমরা কোটা পদ্ধতি সহজ ও যৌক্তিক সংস্কারের কথা বলেছি।’

এই কোটা নিয়ে যেন কোনো ষড়যন্ত্র না হয়, সেদিকে নজর রাখতে সংসদীয় কমিটি তাগিদ দিয়েছে বলে জানান তিনি।

বর্তমানে সরকারি চাকরিতে ৫৬ শতাংশ পদ বিভিন্ন কোটার জন্য সংরক্ষিত। কোটার পরিমাণ ১০ শতাংশে কমিয়ে আনার দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে আসছে। গত ১১ এপ্রিল দেশজুড়ে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আসে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেদিন সংসদে দেয়া বক্তব্যে কোটা বাতিল করার ঘোষণা দেন।

পরদিন কয়েকটি দাবি রেখে আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

আজকের সংসদীয় কমিটির বৈঠকে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক নিয়োগে বর্তমান পদ্ধতি বাতিল করে আগের পদ্ধতি বহালের সুপারিশ করা হয়। এনসিআরটিএর মাধ্যমে নয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পরিষদের মাধ্যমে নিয়োগের ব্যবস্থা নিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে বলা হয়েছে।
এ ছাড়া আগামী অর্থবছরে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে কলেজ সরকারি করা এবং এমপিওভুক্তির প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার জন্যও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করে কমিটি।

বৈঠকে কমিটির সদস্য জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক, এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী, র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, খোরশেদ আরা হক ও জয়া সেনগুপ্তা অংশ নেন বলে সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা গেছে।