‘কৃষকের কান্না, আর না আর না’

দিনাজপুর সংবাদদাতা : ‘কৃষক বাঁচলে ,বাঁচবে দেশ, গড়ে উঠবে সোনার বাংলাদেশ’ স্লোগানে ধানের ন্যায্য মূল্যের দাবিতে মানববন্ধন করেছে দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২নং গেট সংলগ্ন দিনাজপুর-ঢাকা মহাসড়কের সামনে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে ‘কৃষকের কান্না, আর না আর না’, ‘কৃষি প্রধান দেশে কৃষকরা কেন অবহেলিত’, কৃষক বাঁচলে বাঁচবে দেশ, গড়বে সোনার বাংলাদেশ’, ‘কৃষিতে সর্বোচ্চ ভর্তুকি নিশ্চিত করতে হবে’ ইত্যাদি লেখা সম্বলিত প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন ও ব্যানার হাতে নিয়ে কৃষকদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দাবি তুলে ধরেন শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা কৃষক পরিবারের ছেলে। আমাদের বাবারা ধান চাষ করেই আমাদের পড়ালেখা করান। বাজারে ধানের দাম কম থাকায় তারা ধান বিক্রি করতে পারছেন না। বাবারা ভালো না থাকলে, আমরা কীভাবে ভালো থাকি? যে দেশে প্রায় ৮০ ভাগ মানুষ কৃষি পণ্যের ওপর নির্ভরশীল সেই কৃষি প্রধান দেশে আজ কৃষকরা কেন অবহেলিত হবে ? বাজারে এক কেজি গরুর মাংস কিনতে গেলে লাগে ৫৫০ টাকা। সেখানে এক মণ ধানের মূল্য ৫০০ টাকা। এক মণ ধান বিক্রি করেও এক কেজি মাংসের টাকা হয় না । কেন এই দুরাবস্থা কৃষকের?

তারা আরও বলেন, কতটুকু কষ্ট পেলে একজন কৃষক ধান ক্ষেতে আগুন লাগিয়ে ধান পুড়ে ফেলতে পারে, একবার সেই অবস্থানে নিজেকে দাঁড় করিয়ে ভাবুন। মনে রাখবেন তাদের ঘাম ঝড়ানো পয়সায় কিন্তু আপনার আমার মতো মানুষের বেতন-ভাতা হয়। তারা ফসল ফলায় বলে আমরা দুমুটো ভাত খেতে পারি। এই মানববন্ধন থেকে আমরা অনতিবিলম্বে কৃষিপণ্যে ন্যায্যমূল্য এবং কৃষিতে সর্বোচ্চ পরিমাণ ভর্তুকি নিশ্চিতকরণের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আব্দুল মান্নান, ডেবেটিং সোসাইটির সভাপতি জাহিদ শিহাব ,সেঁজুতি সাংস্কৃতিক ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক রাজীব আহমেদ, অর্কের সাধারণ সম্পাদক রুবাইয়াত পৃথ্বি , রোভার স্কাউট মুশফিকুর রহমান, এইচএসটিইউ’র মুনা ও মানববন্ধনের আয়োজনের আহ্বায়ক মারুফ হাসান।