কুষ্টিয়ায় অপহরণ আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা

কুষ্টিয়া সংবাদদাতা : কুষ্টিয়ার মিরপুরের চিথলিয়ার আলোচিত শিশু দেব দত্তের অপহরণ ও হত্যাকাণ্ডের মাস পেরোলেও অপহরণ আতঙ্ক কাটেনি শিক্ষার্থীদের মাঝে। স্কুলে যাওয়া-আসা নিয়ে এখনও আতঙ্কে ভুগছেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা। তবে চিথলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রুনা লাইলা বলছেন, অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে আসছে।

প্রধান শিক্ষক বলেন, শিশু দেব দত্তের অপহরণ ও হত্যার ঘটনার পর থেকে শিক্ষার্থীদের মনে একটা ভয় কাজ করে। অনেক বাচ্চা স্কুলে আসতে চায় না। তিনি বলেন, দেব দত্ত এই বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল। এই ঘটনার পর থেকে ওই ক্লাসের শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসতে ভয় পেতো। আমরা অভিভাবক সমাবেশ, মা সমাবেশ, মাইকিং এবং বিভিন্নভাবে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে আতঙ্ক দূর করেছি।

রবিবার বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির দেবের সেকশনে ৬৩ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৪৩ জন উপস্থিত ছিল। তবে কয়েক দিনের মধ্যে এটা স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলে আশা করেন প্রধান শিক্ষক।

অপহরণ আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা তাদের অভিভাবক সঙ্গে নিয়ে স্কুলে আসছে। আবার ছুটির সময় তাদের অভিভাবকরা নিয়ে যাচ্ছে।

বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী পলাশ বলে, ‘আমার খুব ভয় লাগে। কেউ যদি আমাকে ধরে নিয়ে যায়। তাই আমার দাদি আমাকে প্রতিদিন স্কুলে রেখে যায়, আবার ছুটি হলে নিয়ে যায়।’ দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী জাহিদের বাবা আজিম মালিথা বলেন, দেব অপহরণের এক মাস পার হয়ে গেছে। বাচ্চারা অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে গেছে। তবে আমাদের মনে এখনও আতঙ্ক বিরাজ করছে। তাই আমার ছেলেকে রোজ স্কুলে রেখে যাই এবং আবার বাড়ি নিয়ে যাই। এছাড়া তাকে বলেছি অপরিচিত কেউ ডাকলে কাছে না যেতে। কেউ কিছু দিলে না খেতে। কেউ মোবাইল ফোনে গেম খেলা দেখালে তা না দেখতে। শিশু দেবের মতো এই ঘটনা যেন আর না ঘটে সে ব্যাপারে কর্তৃপক্ষকে আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

গত ৮ জুন দেব দত্ত প্রাইভেট পড়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে কিছুদূর যাওয়ার পর উপজেলার চিথলিয়া গ্রামের রাস্তা থেকে মোটরসাইকেল আরোহী দুর্বৃত্তরা তাকে তুলে নিয়ে যায়। ঘটনার পর থেকেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অব্যাহত তৎপরতায় ২৫ জুন দুপুরে তার অর্ধগলিত বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়।