কুমিল্লা অভিমুখে জাগরণের লংমার্চ রবিবার

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থী ও নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনু হত্যায় বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে সারাদেশ।হত্যার ঘটনায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে আগামী রবিবার কুমিল্লা অভিমুখে লংমার্চের ঘোষণা দিয়েছে গণজাগরণ মঞ্চ। ঘোষণায় বলা হয়েছে, সকাল ৮টায় রাজধানীর শাহবাগ থেকে এ লংমার্চের যাত্রা শুরু হবে।

প্রসঙ্গত, গত রোববার দিবাগত রাতে (২০ মার্চ) ময়নামতি সেনানিবাসের অলিপুর এলাকায় একটি কালভার্টের কাছ থেকে পুলিশ সোহাগী জাহান তনুর লাশ উদ্ধার করে। সে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থিয়েটারের সদস্য ছিল।

আজ শুক্রবার বিকেলে শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে তনু হত্যার বিচারের দাবিতে অনুষ্ঠিত গণসমাবেশে এই ঘোষণা দেন মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার।

গণজাগরণ মঞ্চের স্বাধীনতা দিবসের নিয়মিত কনসার্ট বাতিল করে শনিবার বিকাল ৩ টা থেকে তনু হত্যার বিচারের দাবিতে প্রতিবাদী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেয়া হয়।

ইমরান এইচ সরকার বলেন, ‘অভিযোগ উঠেছে, কুমিল্লায় সুশীল সমাজকে তনু হত্যা নিয়ে কথা বলতে নিষেধ করা হয়েছে। কুমিল্লায় আন্দোলনকারীদের বাধা দেয়া হচ্ছে। আমরা বলতে চাই, কুমিল্লায় বাধা দিয়ে আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না। সারাদেশে আন্দোলন গড়ে তোলার মাধ্যমে হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।’
ডা. ইমরান আরো বলেন, তনু হত্যার কয়েকদিন আগে সারা বাংলাদেশের মানুষ যখন রিজার্ভ লুটের ঘটনায় বিক্ষুব্ধ তখন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থী নাট্যকর্মী তনুকে হত্যা করা হয়েছে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে এই রিজার্ভ লুটের ঘটনা আর তনুর ধর্ষণের ঘটনা কি আদো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নাকি এর মধ্যে যেগসূত্র রয়েছে। আমরা দেখেছি এ দেশে কোন একটি ঘটনার বিচার হয়নি অথচ আর একটি ঘটনা দিয়ে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে সুতরাং রিজার্ভ লুটের ঘটনা অন্য একটি ঘটনা দিয়ে ধামাচাপা দেয়া হবে না বা হয়নি সেটি প্রমাণ করবার দায়িত্ব প্রশাসনের।