ওয়ারীতে যুবলীগের তিন নেতা-কর্মীকে মুখোশধারীদের গুলি

নিজস্ব প্রতিবেদক : পুরান ঢাকার ওয়ারীতে মুখোশধারী দুর্বৃত্তদের গুলিতে যুবলীগের দুই নেতা এবং একজন কর্মী আহত হয়েছেন। তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, শনিবার রাত পৌনে নয়টার দিকে ওয়ারী থানার নারিন্দা এলাকায় এই হামলা হয়। আর এতে আহত হন ৪১ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল, তিন নম্বর ইউনিটের সভাপতি রবিন এবং সদস্য কাজল।

এই প্রতিবেদন লেখার সময় আহত তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের অস্ত্রোপচার কক্ষে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। তাদের অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

কারা কী কারণে এ হামলা করেছে, তা বলতে পারছে না পুলিশ। হামলার কথা শুনে ওয়ারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজিজুর রহমান ঘটনাস্থলে গেছেন বলে জানিয়েছেন থানার কর্মকর্তারা। ওসি ফিরলে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন তারা।

ওসি আজিজকে একাধিকবার কল করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তার ফোন নম্বরটি ব্যস্ত ছিল।

ঢাকা মহানগর পুলিশের ওয়ারি জোনের অতিরিক্ত উপ কমিশনার নুরুল আমিন বলেন, ‘ঘটনার তদন্ত চলছে। এখনই কিছু জানানোর মতো পাওয়া যায়নি।’

আহত জুয়েলের বন্ধু আনোয়ারুল ইসলাম অন্তু জানান, রাত সাড়ে আটটার সময়ে তারা তিনজন নারিন্দার দক্ষিণ মুসন্দি এলাকার বনফুল হোটেলের গলির মুখে বসে আড্ডা দিচ্ছিলেন। এই সময়ে মুখোশ পরা চার থেকে পাঁচজন সন্ত্রাসী এসে তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। পরে গোলযোগের মধ্যে তারা সবাই পালিয়ে যায়।

এ সময় জুয়েলের বাম পায়ে রবিনের ডান পায়ে এবং কাজলের বাম উরুতে একটি করে গুলি লাগে। পরে তাদের রাত পৌনে ১০ টার সময়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হয়।

অন্তু জানান, ঘটনা বেশ কয়েক ঘণ্টা আগে তারা ওই এলাকার সেতুবন্ধন ক্লাবে একটি বিচার সালিশ করেছিল। তবে কী কারণে কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তা জানা নেই অন্তুর।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, ‘কী নিয়ে গোলাগুলি হয়েছে তা আমরা জানতে পারিনি। স্থানীয়রা তিনজনকে নিয়ে এসেছে। তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’