ওয়ানঝু ইস্যুতে আরেক কানাডিয়ানকে আটক করল চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতার মেয়ে ও প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকর্তা মেং ওয়ানঝুকে গ্রেফতারের প্রেক্ষিতে তৃতীয় আরেকজন কানাডিয়ান নাগরিককে আটক করেছে চীন। বুধাবার কানাডিয়ান একটি সংবাদপত্রের এক প্রতিবেদনে এমন তথ্যই জানানো হয়েছে।

চীনা টেলিকম জায়ান্ট হুয়াওয়ের কর্মকর্তাকে গ্রেফতারের পর থেকে বেইজিং ও অটোয়ার কূটনৈতিক সম্পর্ক বেশ চরমে। গত ১ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে কানাডার ভাঙ্কুভারে গ্রেফতার করা হয় চীনের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা মেং ওয়ানঝুকে।

দেশটির স্থানীয় দৈনিক ন্যাশনাল পোস্টে কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, তারা চীনে কানাডিয়ান এক নাগরিককে আটকের ব্যাপারে অবিহিত হয়েছে। তবে ওই মুখপাত্র এই আটকের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানান নি।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নারী মুখপাত্র হুয়া চুনিয়াং মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, তিনি এ সংক্রান্ত কোনো আটকের ব্যাপারে কিছু শোনেন নি। সম্প্রতি চীন দুইজন কানাডিয়ান নাগরিককে আটক করে। ধারণা করা হচ্ছে, মেং ওয়ানুঝুর গ্রেফতারের বদলা হিসেবেই এই আটক করছে বেইজিং।

মেং ওয়ানুঝুর বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইরানে প্রযুক্তি বিক্রি করার অভিযোগ করা হচ্ছে। মেং ওয়ানঝুকে গ্রেফতারের ঘটনাটি যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বাণিজ্য সম্পর্কে বড় ধরনের প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ চীন। দ্রুত মেং ওয়ানঝুকে মুক্তি দিতে আহ্বান জানিয়েছে।

গত মঙ্গলবার মেং ওয়ানঝু কানাডার আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন। শুনানি শেষে শর্ত সাপেক্ষে তার জামিন মঞ্জুর করে কানাডার আদালত। তবে মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে যুক্তরাষ্ট্রে ৩০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে তার।