এমপিওভুক্তির সুনির্দিষ্ট ঘোষণা দাবিতে ৫ম দিনে আমরণ অনশন অব্যাহত

৪ জানুয়ারি ২০১৮ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সকল স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে ‘আমরণ অনশন’ কর্মসূচি ৫ম দিনেও অব্যাহত রেখেছেন নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দ। ইতোপূর্বে সংগঠনের পক্ষ থেকে ২৬ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত পাঁচ দিন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খোলা আকাশের নিচে দিবারাত্রি অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দ। এরপর গত ৩১ ডিসেম্বর থেকে দাবি আদায়ে আমরণ অনশন কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন।

শিক্ষক নেতৃবৃন্দ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির সুনির্দিষ্ট সময় ঘোষণার দাবি করে এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। তারা এমপিওভুক্তির বিষয়ে নিশ্চিত না হয়ে বাড়ি ফিরে যাবেন না বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করে আসছেন। নেতৃবৃন্দ এমপিওভুক্তির দাবি আদায় ত্বরান্বিত করতে সারাদেশের নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীরা ঢাকায় এসে আন্দোলনে যোগ দেওয়ায় আন্দোলন আরো জোরদার হয়েছে।

আমরণ অনশনের ৫ম দিনে এ পর্যন্ত ১০৪ জন শিক্ষক-কর্মচারী অসুস্থ হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন। ৭০২নং ওয়ার্ডের ৮(ক)নং বেডে পাবনার বুধাহাটা মহিলা কলেজের শিক্ষক শফিকুল, ৮(খ)নং বেডে রংপুরের খামারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের লাভলু মন্ডল, কুড়িগ্রামের শিক্ষক নান্টু শেখ, ১১নং বেডে খুলনার কামার খোলা নিম্নে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সুরঞ্জিত মন্ডল ভর্তি আছেন। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে অনশনস্থলে পুনরায় যোগ দিয়েছেন।

আমরণ অনশন কর্মসূচিতে সমর্থন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন তেল-গ্যাস-বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল-এম.এল এর সাধারণ সম্পাদক সাবেক মন্ত্রী দিলীপ বড়–য়া, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এম.পি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ফাহমিদুল হক, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহঃ তানজীম উদ্দিন খান, একাউন্টিং বিভাগরে সহযোগী অধ্যাপক মোশাহিদা সুলতানা, সিপিবির সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা রাজেকুজ্জামান রতন, বাসদ (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় পরিচালনা কমিটির সদস্য শুভ্রাংশু চক্রবর্তী প্রমুখ।