ইবিতে ছাত্রদল কর্মীকে পেটালো ছাত্রলীগ

কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) সবুজ হোসেন নামে এক শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটিয়েছে ছাত্রলীগের কর্মীরা। সোমবার বেলা ১১টায় অনুষদ ভবনের সামনে তাকে পেটানো হয়। আহত ওই ছাত্রকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা ১১টার দিকে অনুষদ ভবনের সামনে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অমিত কুমার দাসের নির্দেশে একই বিভাগের গোলাম মোস্তফা, ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান, রেজভী আহমদ পাপনসহ ছাত্রলীগের ১০/১২ জন কর্মী সবুজকে মারধর করে।
উপর্যুপুরি কিল-ঘুষি ও লাথির আঘাতে সবুজ মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে শিক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে ইবি চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।
আহত সবুজ বাংলা বিভাগের ২০১২-২০১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। সে বিশ^বিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের কর্মী বলে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক অমিত কুমার দাশ জানান- ‘বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি করায় সবুজের উপর আমাদের কয়েকজন কর্মী চড়াও হয়। এছাড়া সবুজ ছাত্রদল কর্মী পরিচয় দিয়ে আস্ফালন দেখাচ্ছিল।’
তবে ছাত্রলীগ ও আহত সবুজের বন্ধুদের একটি সূত্র জানায়, প্রেমঘটিত কারণে সবুজের সঙ্গে গোলাম মোস্তফার বিরোধ চলছিল। এমনকি গোলাম মোস্তফা তার সহপাঠি সবুজকে নানাভাবে হুমকি দিচ্ছিলেন বলেও ছাত্রলীগের একটি অংশ জানিয়েছে।
প্রেমঘটিত বিষয়ের বিরোধকে রাজনৈতিক ইস্যু বানিয়ে সবুজকে মারধর করে গোলাম মোস্তফা ও তার বন্ধুরা।
এ ব্যাপারে ছাত্রদলের সভাপতি ওমর ফারুক বলেন- ‘শান্তিপূর্ণ ক্যাম্পাসে ক্লাসে অংশগ্রহন করতে গিয়ে একজন ছাত্রকে মারধরের ঘটনা লজ্জাজনক ব্যাপার। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে এসব ঘটনার বিচার দাবি করছি।’
বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম বলেন- ‘ওই ছাত্র বঙ্গবন্ধুকে কট’ক্তি করেছিল বলে আমি শুনেছি। তবে কি ধরণের কট’ক্তি করেছে তা আমি শুনিনি।’