ইন্টারপোল প্রধান নিখোঁজ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পুলিশের আন্তর্জাতিক সংস্থা ইন্টারপোলের প্রধান মেং হংওয়েই নিখোঁজ হয়েছেন। ফ্রান্সে সংস্থার সদরদপ্তর থেকে চীন যাওয়ার পথে তিনি নিখোঁজ হন। এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করেছে ফ্রান্স। খবর রয়টার্সের।

খবরে বলা হয়, গত ২৯ সেপ্টেম্বর মেং হংওয়েই চীনের উদ্দেশ্যে ফ্রান্স ত্যাগ করেন। কিন্তু তার স্ত্রী সদরদপ্তরে যোগাযোগ করে জানায়, তিনি তার স্বামীর খোঁজ পাচ্ছেন না।

সংস্থার প্রধানের নিখোঁজ ঘটনার তদন্তের সঙ্গে যুক্ত একটি সূত্র জানায়, মেং হংওয়েই এর সঙ্গে চীনা কর্তৃপক্ষের মতবিরোধ ছিল। সেই কারণে তাকে আটক করা হয়েছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীনের অনেক সিনিয়র কর্মকর্তা নিখোঁজ হয়েছেন। কারণ জানা যায়নি।

দুই বছর আগে ইন্টারপোলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন মেং। ৬৪ বছর বয়সী মেং চীনের কমিউনিস্ট পার্টির একজন জ্যেষ্ঠ নেতা।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, প্রাথমিক তদন্তের পর ফরাসি কর্তৃপক্ষের একটি সূত্র জানিয়েছে, ফ্রান্সে নিখোঁজ হননি মেং। তার স্ত্রী পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করলে এই তদন্ত শুরু হয়।

ইন্টারপোল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মেং হোয়াওয়েইর নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে ওয়াকিবহাল আছেন তারা। সংস্থাটির বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘ফ্রান্স ও চীন—উভয় দেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিষয় এটি।’

সংস্থাটি দাবি করেছে, প্রেসিডেন্ট নন, মহাসচিবই ইন্টারপোলের প্রতিদিনের কর্মকাণ্ড দেখভাল করে থাকেন। প্রেসিডেন্ট মেং ইন্টারপোলের নির্বাহী কমিটির নেতৃত্বে ছিলেন এবং সংস্থাটিকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দিতেন।

হংকংয়ের সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, ৬৪ বছর বয়সী মেং চীনে অবতরণ করার পরই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। তবে কী কারণে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে সেই বিষয়টি পরিষ্কার নয়।

ফ্রান্সের পুলিশ মেংয়ের নিখোঁজের ঘটনাকে উদ্বেগজনক বলে উল্লেখ করেছে। ১৯২টি দেশের পুলিশের সংস্থা ইন্টারপোল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মেংয়ের নিখোঁজের বিষয়টি তারা অবগত। এটা চীন এবং ফ্রান্সের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ইন্টারপোলে প্রেসিডেন্ট দ্বিতীয় পদমর্যাদার। সংস্থায় প্রধান ভূমিকা পালন করেন মহাসচিব। প্রেসিডেন্ট নামমাত্র প্রধান। তবে বিভিন্ন নীতি প্রণয়নে দিকনির্দেশনা দেন।