আল্লাহ মনের আশা পূরণ করবেন: এরশাদ

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জাতীয় পার্টির সহজ জয়ের আশা পূরণ হবে বলে মনে করছেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

বৃহস্পতিবার সকালে সাড়ে নয়টার দিকে জাপা চেয়ারম্যান নগরের সেনপাড়ার শিশুমঙ্গল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দেন। এরপর বুথ থেকে বের হয়ে তিনি বিজয়ের ভি চিহ্ন দেখান।

এ সময় এরশাদ বলেন, ‘আমি গতকালই (বুধবার) বলেছিলাম- আমরা রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে জিতব। আমি আশা করি, আল্লাহ আমার সে আশা পূরণ করবেন।’

রংপুর সিটির প্রথম ভোটে ২০১২ সালে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা প্রায় ৩০ হাজার ভোটে হেরেছিলেন। গত নির্বাচনে বিজয়ী সরফুদ্দিন আহমেদ ঝণ্টুর সঙ্গে মোস্তফা এবারও ভোটের লড়াইয়ে রয়েছেন। জাতীয় পার্টি বলছে গত নির্বাচনে দলীয় প্রতীক না থাকায় জাতীয় পার্টির সমর্থকদের অনেক ভোট ঝণ্টু পেয়েছিলেন। কিন্তু এবার লাঙ্গলের বাইরে ভোট দেবেন না জাতীয় পার্টির সমর্থকরা।

ভোটের পরিবেশ কেমন-এমন প্রশ্নে এরশাদ বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে কোনো শঙ্কা নেই।’

‘এটা নির্বাচন কমিশনের প্রথম টেস্ট। এর মাধ্যমে তাদের নিরপেক্ষতার প্রমাণ হবে। লোক দেখানোর জন্য হলেও তারা এটা অবাধ ও সুষ্ঠু করবে।’

স্থানীয় সরকারের এই নির্বাচনের প্রভাব আগামী জাতীয় নির্বাচনেও পড়বে বলে মনে করেন এরশাদ। বলেন, ‘রংপুরে জাতীয় পার্টির প্রতি মানুষের জোয়ার তৈরি হয়েছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে জাতীয় পার্টি আগামী জাতীয় নির্বাচনেও ভালো করবে।’

এ সময় এরশাদের সঙ্গে ছিলেন দলের কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের ও লাঙলের প্রার্থীর সমন্বয়ক স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা।

রাঙ্গা বলেন, ‘দলীয়ভাবে নির্বাচন হওয়ায় সবার মাঝে উৎসব বিরাজ করছে। আশা করি, শেষ পর্যন্ত এই ধারা অব্যাহত থাকবে।’

‘নির্বাচনে কোনো অনিয়মের খবর এখন পর্যন্ত আমরা পায়নি। সকাল সাড়ে নয়টা পর্যন্ত কোনো অনিয়মের খবর পাওয়া যায়নি’- এই বলে শেষ করেন রাঙ্গা।