‘আমরাই দুনিয়ার সব থেকে নিকৃষ্ট জাতি’

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বাংলাদেশে ক্রিকেট দলের সদস্যরা নানা সময় যে নোংরামির শিকার হয়েছেন সামাজিক মাধ্যমে, তা থেকে বাদ গেল না পেসার তাসকিনের সদ্য জন্ম নেয়া সন্তানও।

শনিবার রাতে তাসকিন-রাবেয়া নাইমার ঘর আলো করে আসে প্রথম ছেলে সন্তান। ছেলের ছবি তাসকিন নিজেই সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেন। সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয় শুভেচ্ছার বন্যা।

এর মধ্যেই আবার শুরু হয় নোংরামো। এতটাই বাজে ভাষায় তাসকিন ও তার স্ত্রীকে আক্রমণ করা হয়েছে, যার প্রতিক্রিয়ায় তাসকিন জানাতে বাধ্য হন তাদের বিয়ে কবে হয়েছে, আর গর্ভে সন্তান আসলে কত দিনে তা ভূমিষ্ঠ হয়।

এমন নোংরামোর শিকার এর আগেও হতে হয়েছে জাতীয় দলের ক্রিকেটার নাসির হোসেনকে। বোনের সঙ্গে বিমানে ছবি দেয়ার পর নোংরা ও অশালীন মন্তব্যের ঝড় বয়ে যায়। এমন বিড়ম্বনায় পড়তে হবে সেটা ধারণা ছিল না নাসিরের। পরে তিনি ফেসবুকেই তার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বোনের সঙ্গে ছবি তুলে নিতে বাধ্য হন।

ম্যাচে সব খেলোয়াড় সব সময় ভালো করেন না। কিন্তু লিটন দাস আর সৌম্য সরকারকে থাকতে হয় শূলের চুড়ায়। মাঠে ভালো না করলেই তাদেরকে নিয়মিত শিকার হতে হয় সাম্প্রদায়িক আক্রমণের।

সন্তান জন্ম দিয়ে আনন্দে ভাসা তাসকিনেরও এই নোংরামোর শিকার হতে হবে, সেটা কল্পনাতেও ছিল না তার। তাসকিনেরও নেতিবাচক কমেন্টের প্রতিক্রিয়ায় পোস্টের কমেন্টে একজন বাবা হয়ে বিয়ে আর ছেলের জন্মের মধ্যে কতটা সময় গেছে, সেই হিসাব দিতে হলো এই বোলারকে।

তাসকিন লেখেন, ‘সবার উদ্দেশ্যে একটা কথা বলি, কেও মনে কিছু নেবেন না। আমার বিয়ে হয়েছে ১১ মাস। দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ থেকে এসেই বিয়ে করলাম ৩১ অক্টোবর যার জন্য বিয়ের বয়স হলো ১১ মাস। তাছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকায় ছিলাম ৪৮ দিন। সব মিলিয়ে হল ১২ মাস ১৮ দিন। আমার পুত্র সন্তান হইলো ৯ মাস ২৭ দিনে। যদি আমার বিয়ের আগে আমার স্ত্রী প্রেগন্যান্ট হতো তাহলে আমার বাচ্চা বিয়ের ছয় মাস এর মাঝেই দুনিয়াতে থাকত। যাই হোক যাদের ভুল ধারণা ছিল আমাদের প্রতি তাদের জন্যে এই মেসেজটি। সবাইকে ধন্যবাদ।’

সামাজিক মাধ্যমেই আবার নোংরামোর প্রতিবাদ জানাচ্ছে বহুজন। তাসকিনের এই স্ট্যাটাসের স্ক্রিনশট তুলে ধরেই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বহুজন।

তাসকিনের স্ট্যাটাস তুলে দিয়ে আহমেদ আল আবির লেখেন, ‘জাতি হিসেবে কতটা বজ্জাত আমরা তার প্রমান নিচের এই কমেন্টটা। একটা জাতি কতটা অসভ্য হলে সদ্য বাবা হওয়া একজন ক্রিকেটার তার বউয়ের প্রেগন্যান্সির খবর এইভাবে পোস্ট করে। আমরা দুনিয়ার নিকৃষ্ট জাতির একটা না, আমরাই দুনিয়ার সব থেকে নিকৃষ্ট জাতি।’

‘জাস্ট বমি আসতেসে এইসব অনলাইন বর্বরদের কাজ দেখে৷ এতটা অমানুষ দুনিয়ার কোথাও নাই।’

ফারাহ তানজি লেখেন, ‘তাসকিন আহমেদ সন্তানের বাবা হয়েছেন। দারুণ খুশির খবর। কিন্তু থামুন, আমরা যে বাংলাদেশি, ঠিক আছে? সব কিছু নিয়ে নোংরামো করতে আমরা যে উস্তাদ। এখানে আমরা কী করলাম? আমরা মজা লুটার চেষ্টা করলাম।…. বিরক্তও লাগে, ঘেন্নাও আসে। জানি, তাতে আমাদের তো কিছু আসে যায় না!!!!’