আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক শান্তি বজায় রাখতে কাজ করে যাবে বাংলাদেশ: রাষ্ট্রদূত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহীত রূপকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক শান্তি বজায় রাখতে বাংলাদেশ কাজ করে যাবে। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে বুধবার ‘আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তা সংরক্ষণ: আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার সমসাময়িক জটিল চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবিলা’ বিষয়ক এক উন্মুক্ত বিতর্কে অংশ নিয়ে জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন এ কথা বলেন। ঢাকায় প্রাপ্ত খবরে এ কথা বলা হয়েছে।

রাষ্ট্রদূত মাসুদ বলেন, দ্বন্দ্ব ও সংঘাত প্রতিরোধকে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারভুক্ত জাতীয় দায়িত্ব বলে মনে করে। সংঘাত সৃষ্টিকারী সম্ভাব্য উপাদান ও বিধ্বংসী অপতত্পরতা নির্মূল করতে সরকার নারী ও যুব সম্প্রদায়সহ সমাজের সকল স্তরের মানুষের সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেছে।

সংঘাতের প্রাথমিক লক্ষণসমূহ চিহ্নিত করার প্রতি বিশেষভাবে জোর দিয়ে তিনি বলেন, এটি অনুধাবনে ব্যর্থতা বা সীমাবদ্ধতার কারণেই বারবার সংঘাতময় পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে। আমরা সকলেই এ বছর আগস্ট মাসে মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে ‘জাতিগত নিধনের আদর্শ উদাহরণ’ এর মতো নির্মমতার সাক্ষী হয়েছি।

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী দেশগুলোর অন্যতম বৃহৎ একটি দেশ হিসেবে বাংলাদেশের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, জাতিসংঘের সংঘাত মোকাবিলা কৌশলগুলোকে রাজনৈতিক সমাধানের বৃহত্তর পরিসরে নিয়ে আসতে হবে।

নিরাপত্তা পরিষদের চলতি মাসের সভাপতি জাপান এ উন্মুক্ত বিতর্কের আয়োজন করে। জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেজ অনুষ্ঠানটিতে বক্তব্য রাখেন।