আজ পটুয়াখালী ও বরগুনা যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : পটুয়াখালী ও বরগুনা সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ শনিবার সকাল ১০টার দিকে হেলিকপ্টারে করে পটুয়াখালী যাওয়ার কথা রয়েছে তার।

সকালে তিনি পটুয়াখালীতে পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্প ও বয়লার টাওয়ার পরিদর্শন করবেন। সেখানে নির্মাণাধীন এক হাজার ৩২০ মেগাওয়াট পায়রা তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের জমি অধিগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্তদের নতুন আবাসস্থল ‘স্বপ্নের ঠিকানার’ দলিল ও চাবি হস্তান্তর করবেন।

এছাড়া মৎস্য পোনা অবমুক্তকরণ, বৃক্ষরোপণ, নবনির্মিত পুনর্বাসন কেন্দ্রের বাড়ি পরিদর্শন করবেন। এরপর তিনি পটুয়াখালী জেলার ১৬টি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন।

এরমধ্যে রয়েছে পটুয়াখালী সরকারি কলেজে নবনির্মিত ১৩২ আসন বিশিষ্ট পাঁচ তলা ছাত্রীনিবাস নির্মাণ, পটুয়াখালী সরকারি কলেজে নবনির্মিত একাডেমিক কাম-এক্সামিনেশন হল নির্মাণ, হাজী আক্কেল আলী হাওলাদার কলেজে চারতলা বিশিষ্ট নবনির্মিত একাডেমিক ভবন নির্মাণ, ইসহাক মডেল ডিগ্রি কলেজে চারতলা বিশিষ্ট নবনির্মিত একাডেমিক ভবন নির্মাণ, কুয়াকাটা খানাবাদ কলেজে চারতলা বিশিষ্ট নবনির্মিত একাডেমিক ভবন নির্মাণ।

এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধা মেমোরিয়াল কলেজে চারতলা বিশিষ্ট নবনির্মিত একাডেমিক ভবন নির্মাণ, আলহাজ্ব জালাল উদ্দিন কলেজে চারতলা বিশিষ্ট নবনির্মিত একাডেমিক ভবন নির্মাণ, সুবিদখালী ডিগ্রি কলেজে চারতলা বিশিষ্ট নবনির্মিত একাডেমিক ভবন নির্মাণ, দুমকি জনতা ডিগ্রি কলেজে চারতলা বিশিষ্ট নবনির্মিত একাডেমিক ভবন নির্মাণ, দুমকি উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়ন, মির্জাগঞ্জ ৩৩/১১ কেভি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র, ক্ষমতা ১০/১৪ এমভিএ, পায়রা সমুদ্রবন্দরের শেখ হাসিনা সড়ক, সার্ভিস জেটি, মসজিদ, অফিসার্স গেস্ট হাউজ ও স্টাফ ডরমেটরি উদ্বোধন করবেন।

এছাড়া তিনি পাঁচটি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এর মধ্যে রয়েছে পটুয়াখালী সরকারি কলেজে পাঁচ তলা বিজ্ঞান ভবন, পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলাধীন কাঁঠালতলী জিসি-পটুয়াখালী বেতাগী আর এইচডি (থানা ব্রিজ) সড়কের শ্রীমন্ত নদীর উপর ৯৬.০০ মি. ব্রিজ; উপজেলা পর্যায়ে প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য কৃষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (৩য় পর্যায়) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলায় কৃষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র; উপজেলা পর্যায়ে প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য কৃষক প্রশিক্ষণ (৩য় পর্যায়) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলায় কৃষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র; পায়রা সমুদ্রবন্দরের ভূমি অধিগ্রহণের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পুনর্বাসন এলাকা।

এরপর দুপুরে বরগুনায় যাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে বরগুনার আমতলীর তালতলি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে জনসভায় যোগ দেবেন। এর আগে তিনি বরগুনা জেলার ২১টি প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন।

প্রকল্পগুলো হলো, বরগুনা সদর হাসপাতালকে ৫০ শয্যা হতে ২৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ। বামনা উপজলো ফায়ার সার্ভিস ও সির্ভিল ডিফেন্স স্টেশন।

বেতাগী উপজেলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল স্টেশন। বরগুনা জেলা গণগ্রন্থাগার।

বরগুনা জেলা পুলিশ লাইনে মহিলা ব্যারাক নির্মাণ। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য জন্য হোস্টেল নির্মাণ এবং সম্প্রসারণ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় বরগুনা দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য পূর্বে নির্মিত একতলা হোস্টেলেরে উপর দ্বিতীয় তলা হোস্টেল নির্মাণসহ প্রথম তলার নবায়ন।

বরগুনার আমতলী থানা ভবন; সদর ইউনিয়নের ভূমি অফিস; ডৌয়াতলা ইউনিয়ন ভূমি অফিস (উপকূলীয়), হোসনাবাদ ইউনয়িন ভূমি অফিস (উপকূলীয়); ঘুর্ণিঝড় সিডোর ও আইলায় ক্ষতিগ্রস্ত উপকূলীয় বাঁধ পুনর্বাসন; এম বালিয়াতলী ডি. এন কলেজের চারতলা একাডেমিক ভবন কাম ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র। বরগুনা সদরের সৈয়দ ফজলুল হক ডিগ্রি কলেজের চারতলা একাডেমিক ভবন কাম ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র; ইউনুস আলী খান ডিগ্রি কলেজের চারতলা একাডেমিক ভবন কাম ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র; আমতলী উপজেলা প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র; বাকেরগঞ্জ-পাদ্রীশিবপুর-কাঠালতলী-সুবিদখালী-বরগুনা সড়ক প্রশস্তকরণ ও মজবুতিকরণ; চুড়িরচর ইউনিয়ন পরিষদ- হাজারিবাঘ- কামড়াবাদ -পুরাকাটা ফেরিঘাট সড়কের ৫৩২০.০০ মি চেইনেজে ৫৪ মি. আরসিসি গার্ডার ব্রিজ। গৌরচিন্না ইউনয়িন পরিষদ কমপ্লক্সে ভবন; বেতাগী উপজেলাধীন বদনীখালী খালের উপর ২০ মি. চেইনেজে ১২০ মি. আরসিসি গার্ডার ব্রিজ; তালতলী উপজেলা পরিষদ কমপ্লক্সে ভবন; বামনা উপজলো পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন সম্প্রসারণ;

একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের বামনা ও তালতলী ভবন নির্মাণ প্রকল্প।