আইপিএল দিয়েই নতুন রূপে, নতুন পরিচয়ে শুরু হলো ওয়ার্নারের

ক্রীড়া ডেস্ক : মুখ ভর্তি দাড়ি, তাও সেটা সাধারণ কোনো রূপে নয়। হুট করেই হয়তো কারো কারো চিনতে ভুল হবে ডেভিড ওয়ার্নারকে। কিন্তু ক্রিকেটের ভক্ত-সমর্থকদের কাছে ডেভিড ওয়ার্নার তো আর অপরিচিত নন। তাকে চিনতে কারও খুব বেশি কষ্ট হওয়ার কথা নয়।

এটা হলো ডেভিড ওয়ার্নারের বাহ্যিক রূপ। তাকে সচরাচর যে রূপে মানুষ দেখতো, এবারের আইপিএলে তার চেয়ে ভিন্ন রূপেই দেখা যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ান এই তারকাকে। এই না হয়, নতুন রূপ। কিন্তু নতুন পরিচয়টাই বা কি?

অবশ্যই নতুন পরিচয়ে এবারের আইপিএল শুরু করলেন ওয়ার্নার। গত বছর মার্চে নিউল্যান্ডসে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িয়ে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে অভিজ্ঞ দুই ক্রিকেটার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ এবং তার সহকারী ডেভিড ওয়ার্নার।

সেই এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষ হতে যাচ্ছে চলতি মাসের ২৮ তারিখ। তার আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তো ওয়ার্নারদের ফেরার উপায়ই নেই। তবে নিষেধাজ্ঞা শেষ হলেই কেবল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার উপযুক্ত হবেন তারা। এর আগে গত বছর বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়ার কারণে, শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক ক্রিকেটই নয়, ভারতের আইপিএল এবং অস্ট্রেলিয়ার বিগ ব্যাশ লিগ থেকেও নিষিদ্ধ হয়েছিলেন তারা।

যে কারণে গত বছর আইপিএলে খেলতে পারেননি তারা দু’জন। একই সঙ্গে খেলতে পারেননি বিগ ব্যাশেও। যদিও খেলেছেন সিপিএল কিংবা বিপিএলে। এবার দু’জনের নিষেধাজ্ঞা মুক্ত হওয়ার আগেই শুরু হয়ে গেলো আইপিএল এবং নিষেধাজ্ঞা মুক্তির ঠিক আগ মুহূর্তে হওয়ার কারণে খেলতে পারছেন ভারতের ঘরোয়া ফ্রাঞ্চাইজি লিগটিতে।

এই এক বছরে পরিশুদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি নতুনভাবে নিজেদের তৈরি করেছেন স্মিথ এবং ওয়ার্নার। বাংলাদেশে বিপিএল খেলতে এসে নিজেদের মেলে ধরার সুযোগ পেয়েছিলেন তারা। কিন্তু মাঝপথে ইনজুরিতে পড়ে দু’জনেরই চলে যেতে হয়েছিল দেশে। এরপর অস্ত্রোপচার।

শেষ পর্যন্ত পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ফিরলেন আইপিএল। এই আইপিএলই এখন ওয়ার্নার এবং স্মিথের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার সবচেয়ে বড় মঞ্চ। সামনেই বিশ্বকাপ। সুতরাং, নিঃসন্দেহে বলা যায়, দু’জনই আইপিএলকে পাখির চোখ করে রেখেছেন।

স্মিথ মাঠে নামার আগেই নেমে গেলেন ওয়ার্নার। কলকাতা নাইটরাইডার্সের বিপক্ষে খেলছে তার দল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। এখানেও ওয়ার্নারের নতুন পরিচয়। আগে তিনি ছিলেন হায়দরাবাদ ফ্রাঞ্চাইজির অধিনায়ক। এবার নেতৃত্ব তো নেই’ই। সঙ্গে নেই সহকারীর দায়িত্বও। স্রেফ একজন টিম মেম্বার হিসেবে খেলতে নেমেছেন তিনি।

তবে নতুন রূপ আর পরিচয়ে শুরুটা বেশ ভালোই হলো ডেভিড ওয়ার্নারের জন্য। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে কলকাতা নাইট রাইডার্সের সামনে রীতিমত ঝড় তুলে দিয়েছেন তিনি। এ রিপোর্ট লেখার সময় জনি বেয়ারেস্টকে সঙ্গে নিয়ে ওপেনিংয়েই ৮.৩ ওভারে গড়ে ফেলেছেন ৭৫ রানের জুটি। ৩০ বলে ৪৭ রান নিয়ে ব্যাট করছেন ওয়ার্নার।