অ্যাসাঞ্জকে পেতে ২ মাস সময় আছে যুক্তরাষ্ট্রের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : লন্ডনে গ্রেফতার হওয়া উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ফেরত পেতে দুই মাস সময় হাতে আছে যুক্তরাষ্ট্রের। আর এই দুই মাসের মধ্যে অ্যাসাঞ্জকে ফেরত পাঠানোর যৌক্তিকতা প্রমাণে যুক্তরাজ্যে একটি চূড়ান্ত ও বিস্তারিত ফৌজদারি মামলা দায়ের করতে হবে ওয়াশিংটনকে।

যুক্তরাষ্ট্রের এক সরকারি কর্মকর্তা নাম না প্রকাশের শর্তে এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, অ্যাসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রে হস্তান্তরের জন্য মার্কিন কর্তৃপক্ষ যুক্তরাজ্যের কাছে আপাতত একটি গ্রেফতারি পরোয়ানা পাঠিয়েছে।

মার্কিন ওই কর্মকর্তা আরও জানিয়েছেন, গ্রেফতারি পরোয়ানা পাঠানো হলেও অ্যাসাঞ্জকে প্রত্যর্পণে গত বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে ৬০ দিনের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রকে অবশ্যই একটি আনুষ্ঠানিক মামলা করে তাকে ফেরত দেয়ার অনুরোধ জানাতে হবে।

মামলায় তাদেরকে জানাতে হবে অ্যাসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো হলে তারা কোন কোন আইনি অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে বিচারের মুখোমুখি করবে। শুধু সেটা বললেই হবে না তাদেরকে এ সংক্রান্ত বিচারিক বিষয়ের যৌক্তিকতা ও বিস্তারিত রূপরেখাও দিতে হবে।

গত সাত বছর ধরে লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে বসবাস করছিলেন অ্যাসাঞ্জ। গত বৃহস্পতিবার দূতাবাস থেকে তাকে গ্রেফতার করে ব্রিটিশ পুলিশ। ইকুয়েডর অ্যসাঞ্জকে দেয়া কূটনৈতিক আশ্রয় তুলে নিয়ে তাকে ব্রিটিশ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক অ্যাসাঞ্জ ২০১০ সালে মার্কিন প্রতিরক্ষা সদর দফতর পেন্টাগন ও যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের লাখ লাখ সামরিক ও কূটনৈতিক গোপন নথি ফাঁস করে বিশ্বজুড়ে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছিলেন। তার গ্রেফতারের ঘটনায় আন্তর্জাতিক পরিসরে ব্যাপক সমালোচনা তৈরি হয়েছে।