অসুস্থতা নিয়েও এসএমই মেলায় প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদাতা : গলা বসে গেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। একেবারেই কথা বলতে পারছেন না তিনি। এই পরিস্থিতিতেও পাঁচ দিনের জাতীয় এসএমই মেলা ও এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন তিনি ‘উৎসাহ যোগাতে’।

বুধবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এই মেলা শুরু হয়েছে। চলবে আগামী রবিবার পর্যন্ত।

বাংলাদেশে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের উৎসাহ দিতে এই খাতকে সরকার বেশ গুরুত্ব দিচ্ছে। গত কয়েক বছর ধরেই ব্যাংকগুলোও এসএমই খাতকে গুরুত্ব দিয়ে ঋণ বিতরণ করছে।

গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও এসএমই উদ্যোক্তাদেরকে উৎসাহ দিতে তাদের পুরস্কৃত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে তাদের উৎপাদিত পণ্য প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।

ষষ্ঠ জাতীয় এসএমই মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ব্যবসায়ীদের সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, শিল্প মন্ত্রী আমির হোসেন আমুসহ বেশ কয়েকজন বক্তব্য রাখেন।

এরপর সেরা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা এবং সেরা মাঝারি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা শাখায় মোট ১০ জনকে পুরস্কার তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী।

এরপর পুরস্কারপ্রাপ্তদের সঙ্গে ফটোশেসনের পর তার অনুভূতির কথা জানান পদক পাওয়া একজন। এরপর ঘোষিত হয় প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য রাখার কথা।

কিন্তু ডায়াসে গিয়ে ঠাঁই দাঁড়িয়েছিলেন শেখ হাসিনা। এ সময় অনুষ্ঠানের সঞ্চালক জানান, প্রধানমন্ত্রীর গলায় ব্যথা, তিনি কথা বলতে পারছেন না। লিখিত বক্তব্য উপস্থিত সবাইকে দেয়া হয়েছে।
এই অবস্থাতেও উদ্যোক্তাদের উৎসাহ দিতেই শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানস্থলে হাজির হয়েছেন বলেও জানানো হয় এ সময়।

তবে শেখ হাসিনা ভাঙা গলা নিয়ে বলেন, ‘গলার অবস্থা খারাপ, তাই বক্তব্য দিতে পারছি না।’

এরপর প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত অতিথিদের নিয়ে ফিতা কেটে মেলা উদ্বোধন করেন। সেখানে উপস্থিত কয়েকজন প্রধানমন্ত্রীকে সালাম দিলে তিনি গলায় ধরে ইঙ্গিত করেন, কথা বলার অবস্থানে নেই তিনি।

পরে কয়েকটি স্টল পরিদর্শ করেই অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী।