অসত্য লিখেছেন সিনহা, যোগসাজশ কামালের: বার কাউন্সিল

নিজস্ব প্রতিবেদক : সম্প্রতি প্রকাশিত সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বইয়ে আসা বক্তব্য অসত্য বলে দাবি করেছে বার কাউন্সিল। আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের আগে একটি দল বা গোষ্ঠীকে বিশেষ সুবিধা দিতেই বইটি লেখা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন। বইটি প্রকাশের সঙ্গে ড. কামাল হোসেনের যোগসাজশ রয়েছে বলেও মনে করেন তিনি।

শনিবার বার কাউন্সিল ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন।

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার লেখা ‘এ ব্রোকেন ড্রিম রুল অব ল হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড ডেমোক্রেসি’ নামের বইটি প্রকাশের পর থেকে এর পক্ষে-বিপক্ষে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। এস কে সিনহা দুর্নীতিসহ ১১টি অভিযোগ মাথায় নিয়ে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন।

সিনহার সদ্য প্রকাশিত বইকে ‘অসত্য, বানোয়াট ও মোটিভেটেড’বলে উল্লেখ করে ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, ‘নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে একের পর এক চমক সৃষ্টি করা হচ্ছে। সর্বশেষ যেটা দেখলাম- আমাদের সাবেক প্রধান বিচারপতির একটি বইয়ের ব্যাপার আলোচিত হয়েছে। সে আলোচনায় শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট বারে একটি সংবাদ সম্মেলন হয়েছে।’

‘ব্রোকেন ড্রিমস এমন একটি সময়ে লিখেছেন, কয়েক দিন আগে সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন তিনি একটি মত বিনিময় সভা করেছেন সুপ্রিম কোর্ট বারের অডিটোরিয়ামে। সেখানে কিন্তু বলে ফেলেছিলেন, এস কে সিনহা তথ্য নিয়ে আসছেন অল্প দিনের মধ্যে। তার মানে তাদের সঙ্গে একটা আগাম যোগাযোগ ছিলো। বই বের হবে। সেই জন্য দেখেন তারপরে বই বের করে দিয়েছে।’


সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক এ সভাপতি আরও বলেন, ‘সিনহা যখন প্রধান বিচারপতি ছিলেন তখন আমি সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি ছিলাম। তার সঙ্গে উঠাবসার সুযোগ হয়েছে। আমি যতটুকু জানি উনি যে কথাগুলো বলেছেন, তিনি অসুস্থ না, তাকে জোর করে অসুস্থ বানানো হয়েছে। এগুলো কখনো কোনও সময় আমাদের কাছে.. উনি কথাগুলো বলতে পারতেন। বার অ্যান্ড বেঞ্চ কাছাকাছি। একে অপরের পরিপূরক। কিন্তু তিনি বলেননি।’

‘বাইরে (বিদেশ) গিয়ে তিনি যে বইটি লিখেছেন তার ভেতরে যে তথ্যগুলো লিখেছেন এগুলো অসত্য এবং উদ্দেশ্যে প্রণোদিত। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে প্রণোদিত এজন্য বলছি- এমন একটি সময়ে লিখেছেন উনি যাওয়ার প্রায় এক বছর পরে। এতদিন পরে একটি বই বের করেছেন ধুম্রজাল সৃষ্টি করার জন্য, চমক সৃষ্টি করার জন্য।’

একটা দল বা গোষ্ঠীকে নির্বাচনের আগে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহারের জন্য এই বই বের করা হয়েছে বলে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্তব্য করেন হুমায়ুন।

‘নির্বাচনের আগে ধুম্রজাল ছড়ানোর জন্য এটা অসত্য এবং বানোয়াট উদ্দেশ্যে প্রণোদিত। মূলত বলতে চাইছি মোটিভেটেড।’

সিনহার বইটি নিয়ে শুক্রবার সরকারি ছুটির দিনে হঠাৎ করেই সংবাদ সম্মেলন করে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি। এরপরই সংবাদ সম্মেলন করে বক্তব্য তুলে ধরল বার কাউন্সিল।

বার কাউন্সিল বলছে, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতিকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা কখনই কাম্য নয়। এটা নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট বারের সংবাদ সম্মেলন করা সঠিক হয়নি।

সিনহা বিদেশে গিয়ে কি করেছেন ডকুমেন্টারি ও দালিলিকভাবে সেসব তথ্য-উপাত্তও এখন বেরিয়ে আসবে বলে মন্তব্য করেন ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, যিনি একইসঙ্গে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য এবং বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের আহ্বায়ক।

২০১৭ সালের ১৪ অক্টোবর দেশ ছেড়ে যাওয়া সাবেক এই প্রধান বিচারপতি তার বইটিতে দাবি করেছেন, একটি গোয়েন্দা সংস্থার অব্যাহত ‘হুমকির মুখে’তিনি দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন। এছাড়াও প্রধান বিচারপতি থাকাকালে নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন বইটিতে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বার কাউন্সিলের সদস্য মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান বাদল, মো. কবির উদ্দিন ভূঁইয়া, পারভেজ আলম খান প্রমুখ।