অর্থনৈতিক অঞ্চলের শিল্প ইউনিটে বৃক্ষ রোপণ বাধ্যতামূলক

ঢাকা, ২৪ জুন, ২০১৮ : পরিবেশ সুরক্ষায় অর্থনৈতিক অঞ্চলের প্রত্যেক শিল্প ইউনিটে বৃক্ষ রোপণ (প্লানটেশন) বাধ্যতামূলক করা হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী।
তিনি বলেন,‘আমরা অর্থনৈতিক উন্নয়নএবং পরিবেশ সুরক্ষা সমানভাবে করতে চাই। এর জন্য অর্থনৈতিক অঞ্চলের প্রত্যেক শিল্প ইউনিট সবুজায়ন করাটা বাধ্যতামূলক করা হবে। শিল্প-কারখানার অন্তত ৫ শতাংশ জমিতে বৃক্ষ রোপণ করতে হবে।’
রোববার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বাজার সভাকক্ষে অর্থনৈতিক অঞ্চলকে গ্রিন জোন হিসেবে উন্নয়নে ২০ লাখ গাছ রোপন সমন্বয় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
পবন চৌধুরী জানান, আগামী ৫ বছরে এই ২০ লাখ গাছ লাগানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এর জন্য প্রতিবছর ৪ লাখ গাছ রোপন করতে হবে।
তিনি বলেন, শিল্প ইউনিটের বাইরে বিশেষত অর্থনৈতিক অঞ্চলের রাস্তা, বাঁধ কিংবা নির্ধারিত কোন জায়গায় এই ২০ লাখ গাছ রোপন করা হবে। এর অংশ হিসেবে মিরসরাইয়ে ৫’শ একর এবং সোনাদিয়ায় এক হাজার একর জমিতে বৃক্ষ জাদুঘর (প্লান্ট মিউজিয়াম) গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি তিনি বেসরকারি অঞ্চলগুলোতে সবুজায়নের জন্য নিজস্ব পরিকল্পনা গ্রহণ করে বৃক্ষ রোপনের আহবান জানান।
পরিবেশ সুরক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর কঠোর নির্দেশনা রয়েছে উল্লেখ করে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান আরো বলেন, অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো পরিবেশবান্ধব করতে সবুজায়নের পাশাপাশি প্রত্যেক জোনে জলাধার থাকবে। মিরসরাইয়ে দুই হাজার একর জমিতে জলাধার রাখা হবে। যাতে শিল্পের কারণে কোনভাবে যেন পরিবেশ ধ্বংস না হয়।
মিরসরাই এবং সোনাদিয়ায় কেবল শিল্প-কারখানা থাকবে না, সেখানে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনার কথা জানান তিনি।
উল্লেখ্য, বেজা আগামী ১৫ বছরের মধ্যে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে। এখানে এক কোটি মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে প্রতিবছর ৪০ বিলিয়ন ডলারের অতিরিক্ত রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। বেজা ইতোমধ্যে ১৭টি প্রতিষ্ঠানকে প্রি-কোয়ালিফিকেশন লাইসেন্স এবং ৬টি বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চলকে চূড়ান্ত লাইসেন্স প্রদান করেছে।

Inline
Inline