অবরোধ নয় মাননবন্ধন করবে কোটা আন্দোলনকারীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারে আন্দোলনকারী সংগঠনের নেতাদের ওপর হামলার প্রতিবাদে পূর্বঘোষিত অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

অবরোধের পরিবর্তে রবিবার সারাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে মানববন্ধনের ডাক দিয়েছে চাকিরিপ্রত্যাশী শিক্ষার্থীদের এ সংগঠন। আর সোমবার পালন করা হবে বিক্ষোভ কর্মসূচি।

তবে রবিবার (১জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয় দিবস হওয়ার কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এদিন ঘোষিত কর্মসূচি রাখা হয়নি।

শনিবার বিকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্ত নেয় সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

এর আগে শনিবার দুপুরে রবিবার থেকে দেশের সকল উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনির্দিষ্টকালের অবরোধের ঘোষণা দিয়েছিল সংগঠনটি।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী কোটা বাতিলে দ্রুত প্রজ্ঞাপনের দাবিতে শনিবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ছাত্রলীগের হামলার কারণে সংবাদ সম্মেলন পণ্ড হয়ে যায়। এসময় আন্দোলনকারী সংগঠনেরে এক নেতা নুর হোসেন হামলাকারীদের বেধড়ক পিটুনির শিকার হন। আহত হন আরও চারজন।


সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খান বলেন, ‘আমরা আগামীকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাদে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে আমাদের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করবো।’

তিনি বলেন, ‘অবরোধের কর্মসূচি প্রত্যাহার করে আমরা মানববন্ধন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পরের দিন বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হবে।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, ছাত্রলীগ পরিকল্পিতভাবে এ হামলা চালিয়েছে। তাদের এক নেতাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল থেকে তুলে নিয়ে ছাত্রলীগ অজ্ঞাত স্থানে রেখেছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে রাশেদ খান বলেন, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেন হল থেকে পরিষদের আরেক যুগ্ম-আহ্বায়ক মশিউর রহমানকে ছাত্রলীগের কয়েকজন তুলে নিয়ে যায়। এখনও তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। তাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে রাখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ছাত্রলীগের হামলায় তাদের ১২-১৩জন কর্মী আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এর মধ্যে যুগ্ম-আহ্বায়ক নুরুল হক, আতাউল্লাহ, আরিফ, মামুন ও জসিমের নাম বলেন তিনি।

যদিও ছাত্রলীগের নেতাদের দাবি, আন্দোলনকারীদের একটি গ্রুপ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে। সাধারণ ছাত্ররা তাদের প্রতিহত করেছেন।

Inline
Inline