অন্যায় করলে আমার সঙ্গে থাকা যাবে না: কাদের

নোয়াখালী সংবাদদাতা : অন্যায় করলে কেউ পার পাবে না বলে নেতা-কর্মীদেরকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। জানিয়েছেন, এমন কেউ তার সঙ্গে থাকতে পারবে না।

মঙ্গলবার নোয়াখালীর কবিরহাটে এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন ক্ষমতাসীন দলের নেতা। দলীয় নেতাকর্মীদেরকে তিনি বলেন, ‘আমি উন্নয়ন করব, তোমরা মানুষের সঙ্গে ভালো আচরণ করবে। যারা উন্নয়নের নামে অনিয়ম করবে আমি তাদেরকে ছাড় দেব না। অন্যায়কারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হস্তে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তারা আমার সঙ্গে থাকতে পারবে না।’

এ সময় গণফোরাম, যুক্তফ্রন্ট ও বিএনপির মধ্যে ঐক্যচেষ্টা নিয়েও কথা বলেন কাদের। প্রশ্ন রাখেন, এই ঐক্যের নেতা কে?

‘পাঁচমিশালী নেতৃত্বে’ জনগণের আস্থা নেই মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘এই যে ১০ দল, ২০ দল তাদের নেতা কে? নেতৃত্ব দেবে কে?’

নেতা ছাড়া কোনো আন্দোলন হতে পারে কি না, সেই প্রশ্ন তুলে কাদের বলেন, ‘বিএনপি এখন ঘরে ডুকে গেছে। তারা এখনো তাদের নেত্রী খালেদা জিয়াক মুক্ত করতে কোনো আন্দোলন করতে পারেনি। তারা নির্বাচন নিয়ে কি আন্দোলন করবে?’

বিএনপি এখন চক্রান্তের মাধ্যমে ক্ষমতায় যাওয়ার ষড়যন্ত্র করছে অভিযোগ করে ক্ষমতাসীন দলের নেতা বলেন, ‘তাদের এবারের উদ্দেশ্য হলো, খাওয়া ভবন সৃষ্টি করা। তবে বাংলার জনগণ তাদের এ অপতৎপরতা সফল হতে দেবে না।

নিজ আসনে সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদেরও সমালোচনা করেন কাদের। বলেন, ‘মওদুদ আহমদ ৪০ বছর ঢাকার গুলশানে একটি বাড়ি দখল করে রেখেছিলেন। মরা মানুষের নামে ভুয়া সার্টিফিকেট দেখিয়ে ওই বাড়িটি দখল করে রাখা হয়।’

“বাড়ি হারার পর তিনি বলেন, ‘আমার বাড়ি নাই, ঘর নাই, আমি এখন রাস্তার পড়ে আছি’। অথচ এখন দেখা যায় ঢাকা শহরে তার চারটি বাড়ি রয়েছে।”

নোয়াখালী জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস, পুলিশ সুপার ইলিয়াছ শরীফ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খায়রুল আনম সেলিম, সহ-সভাপতি ও বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী খিজির হায়াত খান প্রমুখ এ সময় ‍উপস্থিত ছিলেন।

এরআগে মন্ত্রী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শিক্ষা প্রকৌশলীর অধিদপ্তরের সাতটি অ্যাকাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন করেন।

Inline
Inline